ঢাকা , শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অদম্য ইচ্ছাশক্তিতে “সুপ্রিয়”১৫ হাজার কি:মি: পাড়ি বাইসাকেলে

প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : ১১:৪৪:০৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৯ জুন ২০২৩
  • / ৭০ বার পড়া হয়েছে

তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:

একদম সহজ ও সাধারণ নন গিয়ার বাইসাইকেল। তা দিয়েই ১৫ হাজার কি:মি: পথ পাড়ি। মানে দৈনিক ১’শ কি:মি: চালানোর ১৫০তম রাইড সম্পন্ন করলেন মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউপির বাসিন্দা সুপ্রিয় পাল। নামে যেমনটি সুপ্রিয় তেমনি সকলের প্রিয় হয়ে আছেন সাইক্লিং এ।
টিলাগাঁও ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামের নির্মল কান্তি পাল ও শিপ্রা রাণী পাল দম্পতির ২৩ বছর বয়সী ছেলে সুপ্রিয় পাল পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়াকালীন সময় থেকেই বাইসাইকেলের প্রতি টান ছিলো তার। তিনি সাইক্লিং গ্রুপ সেঞ্চুরিয়ান রাইডার্সের দায়িত্বে রয়েছেন।
সুপ্রিয় পাল জানান, তাদের এলাকার ৬৫ বছর বয়সী এক প্রবীণ ব্যক্তি সপ্তাহে ১দিন বাইসাইকেল নিয়ে প্রায় ৬০ কি:মি: দূরে সিলেট শহরে চলে যেতেন। উনার গল্প শুনেই শত কি:মি: পথ বাইসাইকেলে পাড়ি দেওয়ার স্বপ্ন দেখেন তিনি। তাও আবার একদম সাধারণ মানের নন গিয়ার বাইসাইকেল দিয়েই স্বপ্ন পূরণে নামেন তিনি।
পরে ২০২১ সালের ১৩ মার্চ বড়লেখা উপজেলার মাধবকুণ্ড জলপ্রপাতে গিয়ে প্রথম ১০০ কি:মি: বাইসাইকেল রাইড সম্পন্ন করেন তিনি। এরপরেও থেমে নেই তার বাইসাইকেলের প্যাডেল। শুক্রবার (৯ জুন) টিলাগাঁও, রবিরবাজার, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার, শ্রীমঙ্গল হয়ে আবার টিলাগাঁওয়ের বাংলাবাজার পর্যন্ত বাইসাইকেল চালিয়ে তিনি ১’শ কি:মি: এ ১৫০তম সেঞ্চুরি সম্পন্ন করেন।
তিনি জানান, বাইসাইকেল চালিয়ে চট্টগ্রাম, ঢাকা, নরসিংদী, ব্রাক্ষণবাড়িয়া, কুমিল্লা, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ ভ্রমণ করেছেন। গেল কয়েকদিন আগে সিলেট বিভাগের ৪ জেলায় ২৩ ঘন্টা ৪৫ মিনিটে ৩’শ কি:মি: রাইড সম্পন্ন করেন তিনি।
আগামীতে বাইসাইকেলে চালিয়ে ৬৪ জেলা ঘুরে দেখার স্বপ্ন ও বাইসাইকেল নিয়ে রেইস প্রতিযোগিতায় যাওয়ার ইচ্ছে আছে। সেজন্য প্রয়োজন একটি ভালো বাইসাইকেল। আর্থিক অবস্থার জন্য ভালো বাইসাইকেল কেনা সম্ভব হচ্ছেনা বলেও জানান সুপ্রিয় পাল।
ট্যাগস :

এই নিউজটি শেয়ার করুন

অদম্য ইচ্ছাশক্তিতে “সুপ্রিয়”১৫ হাজার কি:মি: পাড়ি বাইসাকেলে

প্রকাশের সময় : ১১:৪৪:০৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৯ জুন ২০২৩

তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:

একদম সহজ ও সাধারণ নন গিয়ার বাইসাইকেল। তা দিয়েই ১৫ হাজার কি:মি: পথ পাড়ি। মানে দৈনিক ১’শ কি:মি: চালানোর ১৫০তম রাইড সম্পন্ন করলেন মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউপির বাসিন্দা সুপ্রিয় পাল। নামে যেমনটি সুপ্রিয় তেমনি সকলের প্রিয় হয়ে আছেন সাইক্লিং এ।
টিলাগাঁও ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামের নির্মল কান্তি পাল ও শিপ্রা রাণী পাল দম্পতির ২৩ বছর বয়সী ছেলে সুপ্রিয় পাল পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়াকালীন সময় থেকেই বাইসাইকেলের প্রতি টান ছিলো তার। তিনি সাইক্লিং গ্রুপ সেঞ্চুরিয়ান রাইডার্সের দায়িত্বে রয়েছেন।
সুপ্রিয় পাল জানান, তাদের এলাকার ৬৫ বছর বয়সী এক প্রবীণ ব্যক্তি সপ্তাহে ১দিন বাইসাইকেল নিয়ে প্রায় ৬০ কি:মি: দূরে সিলেট শহরে চলে যেতেন। উনার গল্প শুনেই শত কি:মি: পথ বাইসাইকেলে পাড়ি দেওয়ার স্বপ্ন দেখেন তিনি। তাও আবার একদম সাধারণ মানের নন গিয়ার বাইসাইকেল দিয়েই স্বপ্ন পূরণে নামেন তিনি।
পরে ২০২১ সালের ১৩ মার্চ বড়লেখা উপজেলার মাধবকুণ্ড জলপ্রপাতে গিয়ে প্রথম ১০০ কি:মি: বাইসাইকেল রাইড সম্পন্ন করেন তিনি। এরপরেও থেমে নেই তার বাইসাইকেলের প্যাডেল। শুক্রবার (৯ জুন) টিলাগাঁও, রবিরবাজার, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার, শ্রীমঙ্গল হয়ে আবার টিলাগাঁওয়ের বাংলাবাজার পর্যন্ত বাইসাইকেল চালিয়ে তিনি ১’শ কি:মি: এ ১৫০তম সেঞ্চুরি সম্পন্ন করেন।
তিনি জানান, বাইসাইকেল চালিয়ে চট্টগ্রাম, ঢাকা, নরসিংদী, ব্রাক্ষণবাড়িয়া, কুমিল্লা, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ ভ্রমণ করেছেন। গেল কয়েকদিন আগে সিলেট বিভাগের ৪ জেলায় ২৩ ঘন্টা ৪৫ মিনিটে ৩’শ কি:মি: রাইড সম্পন্ন করেন তিনি।
আগামীতে বাইসাইকেলে চালিয়ে ৬৪ জেলা ঘুরে দেখার স্বপ্ন ও বাইসাইকেল নিয়ে রেইস প্রতিযোগিতায় যাওয়ার ইচ্ছে আছে। সেজন্য প্রয়োজন একটি ভালো বাইসাইকেল। আর্থিক অবস্থার জন্য ভালো বাইসাইকেল কেনা সম্ভব হচ্ছেনা বলেও জানান সুপ্রিয় পাল।