ঢাকা , শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘অনুমতি ছাড়া জন্ম দেয়ায়’ মা-বাবার বিরুদ্ধে মামলা!

প্রতিদিনের পোস্ট ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : ০৯:৫৬:৪৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪
  • / ৭৯ বার পড়া হয়েছে

khandakarit
সন্তান জন্ম দিয়ে সন্তানকে লালন-পালন করে বড় করে তুলা প্রত্যেক মা-বাবার তথা পরিবারের দায়িত্ব। তবে মার্কিন এক নারী মামলা করেছেন তার সেই মা-বাবার বিরুদ্ধে। অভিযোগে বলা হয়েছে, তাকে জন্ম দেওয়ার আগে তার কাছ থেকে অনুমতি নেওয়া হয়নি কেন। তিনি এখানে তাদের সাথে বেড়ে উঠতে রাজি কিনা কেনই বা তা জানা হয়নি।

রোববার ১২ মে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির কাস থিয়াজ নামের ওই নারী তার টিকটক অ্যাকাউন্টের একাধিক ভিডিওতে মামলার কারণ ব্যাখ্যা করেন।

মার্কিন এই টিকটকার কাস থিয়াজ বলেন, ‘আমি মামলা করেছি আমার বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে। তারা আমাকে জন্ম দিয়েছেন বলেই আমি তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছি, কারণ এখানে আমি থাকতে রাজি নই। আমি জানতাম না যে আমাকে বড় হতে হবে এবং নিজেকে চলার জন্য করতে হবে একটি চাকরিও।’

এদিকে থিয়াজের অ্যাকাউন্টটি স্যাটায়ার না দেখেই অনেকে তাঁর পোস্ট নিয়ে সমালোচনা করেছেন। টিকটকে এক ব্যবহারকারী লেখেন, এটা কি আসল?

আরেকজন ব্যবহারকারী লেখেন, এখন তারা বাচ্চাদের তাদের বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে অর্থের জন্য মামলা করতে শেখাচ্ছে যাতে তাদের বড় হয়ে কাজ করতে না হয়।

ট্যাগস :

এই নিউজটি শেয়ার করুন

‘অনুমতি ছাড়া জন্ম দেয়ায়’ মা-বাবার বিরুদ্ধে মামলা!

প্রকাশের সময় : ০৯:৫৬:৪৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪

khandakarit
সন্তান জন্ম দিয়ে সন্তানকে লালন-পালন করে বড় করে তুলা প্রত্যেক মা-বাবার তথা পরিবারের দায়িত্ব। তবে মার্কিন এক নারী মামলা করেছেন তার সেই মা-বাবার বিরুদ্ধে। অভিযোগে বলা হয়েছে, তাকে জন্ম দেওয়ার আগে তার কাছ থেকে অনুমতি নেওয়া হয়নি কেন। তিনি এখানে তাদের সাথে বেড়ে উঠতে রাজি কিনা কেনই বা তা জানা হয়নি।

রোববার ১২ মে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির কাস থিয়াজ নামের ওই নারী তার টিকটক অ্যাকাউন্টের একাধিক ভিডিওতে মামলার কারণ ব্যাখ্যা করেন।

মার্কিন এই টিকটকার কাস থিয়াজ বলেন, ‘আমি মামলা করেছি আমার বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে। তারা আমাকে জন্ম দিয়েছেন বলেই আমি তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছি, কারণ এখানে আমি থাকতে রাজি নই। আমি জানতাম না যে আমাকে বড় হতে হবে এবং নিজেকে চলার জন্য করতে হবে একটি চাকরিও।’

এদিকে থিয়াজের অ্যাকাউন্টটি স্যাটায়ার না দেখেই অনেকে তাঁর পোস্ট নিয়ে সমালোচনা করেছেন। টিকটকে এক ব্যবহারকারী লেখেন, এটা কি আসল?

আরেকজন ব্যবহারকারী লেখেন, এখন তারা বাচ্চাদের তাদের বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে অর্থের জন্য মামলা করতে শেখাচ্ছে যাতে তাদের বড় হয়ে কাজ করতে না হয়।