ঢাকা , সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আমির খানের বডিগার্ড থেকে আজ বলিউড মাতাচ্ছেন কেডি পাঠক ওরফে রণিত রায়

‘আদালত’ ধারাবাহিকের কেডি পাঠককে সকলেই চেনেন। বলিউডের অন্যতম এই জনপ্রিয় অভিনেতার নাম রনিত রায়। এই তারকা’র উত্থানের গল্প শুনলে চমকে যেতে হয়, একসময় বলিউডের পারফেকশনিস্ট বলে পরিচিত আমির খানের দেহরক্ষী হিসেবে কাজ করা থেকে শুরু করে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে তার পা রাখার গল্প রীতিমতো সিনেমার মতোই চমকপ্রদ।

বলিউডের সেই স্ট্রাগল সম্পর্কে একটি সাক্ষাৎকারে অভিনেতা বলেছেন,“ শখ ছিল আমার বড় গাড়ি থাকবে, মেয়েরা আমার নাম ধরে চিৎকার করবে। এরপর বুঝলাম সবটা এত সহজ নয়। দীর্ঘ পাঁচ ছয় বছর আমার কোন কাজ ছিল না। পরবর্তী সময় বুঝতে পারলাম, অভিনেতা হওয়ার সঙ্গে খ্যাতির কোন সম্পর্ক নেই।”

এই সাক্ষাৎকারেই আমির খানের বডিগার্ড হওয়ার প্রসঙ্গ স্বীকার করে তিনি বলেন, “ একসময় আমির খানের বডিগার্ড ছিলাম। তবে আমার সৌভাগ্য যে, আমি আমির খানের সঙ্গে দুই বছর থাকার সুযোগ পেয়েছি। ওনার থেকে আমার কাজের প্রতি অধ্যবসায় ও আগ্রহের বিষয়টি শেখা। আমির খান আমার অনুপ্রেরণা।”

নিজের ব্যর্থতা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে অভিনেতা বলেন, “ প্রাথমিকভাবে ব্যর্থ হওয়ার পর আমির আমায় বাস্তবটা দেখান। গাড়ি-বাড়ির চিন্তা বাদ দিয়ে অভিনয়ে মন দিই। আরো শিখতে চেষ্টা করি।”

এক সময় বলিউডের পরিচালকেরা তাকে কোন ছবিতে নিতে চাইতেন না। রনিতের কথায়, “ আমার ম্যানেজার একবার বলেছিলেন, আমরা কেন রনিত রায়কে কাস্টিং করব? জুনিয়র আর্টিস্টরাও তার চেয়ে ভালো।” এরপর রনিত নিজের মধ্যে একটু একটু করে পরিবর্তন আনার চেষ্টা করেন এবং যে বলিউড ইন্ডাস্ট্রি একদিন তাকে ফিরিয়ে দিয়েছিলো, সেখান থেকেই তার কাজের অফার আসতে থাকে।

বছর দুই আগে একবার সিনেমায় কাজ করার অফার এসেছিলো তার কাছে কিন্তু সিনেমাটি ভালো ছিলো না বলে, তিনি সেই অফার ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। এভাবেই গাড়ি-বাড়ি ও খ্যাতির স্বপ্ন ভুলে নিজের অভিনয় সত্তাকে বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করেছিলেন অভিনেতা এবং সে চেষ্টায় তিনি সফল।

Facebook Comments Box
জনপ্রিয়

আমির খানের বডিগার্ড থেকে আজ বলিউড মাতাচ্ছেন কেডি পাঠক ওরফে রণিত রায়

প্রকাশের সময় : ১০:৫৫:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ডিসেম্বর ২০২২

‘আদালত’ ধারাবাহিকের কেডি পাঠককে সকলেই চেনেন। বলিউডের অন্যতম এই জনপ্রিয় অভিনেতার নাম রনিত রায়। এই তারকা’র উত্থানের গল্প শুনলে চমকে যেতে হয়, একসময় বলিউডের পারফেকশনিস্ট বলে পরিচিত আমির খানের দেহরক্ষী হিসেবে কাজ করা থেকে শুরু করে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে তার পা রাখার গল্প রীতিমতো সিনেমার মতোই চমকপ্রদ।

বলিউডের সেই স্ট্রাগল সম্পর্কে একটি সাক্ষাৎকারে অভিনেতা বলেছেন,“ শখ ছিল আমার বড় গাড়ি থাকবে, মেয়েরা আমার নাম ধরে চিৎকার করবে। এরপর বুঝলাম সবটা এত সহজ নয়। দীর্ঘ পাঁচ ছয় বছর আমার কোন কাজ ছিল না। পরবর্তী সময় বুঝতে পারলাম, অভিনেতা হওয়ার সঙ্গে খ্যাতির কোন সম্পর্ক নেই।”

এই সাক্ষাৎকারেই আমির খানের বডিগার্ড হওয়ার প্রসঙ্গ স্বীকার করে তিনি বলেন, “ একসময় আমির খানের বডিগার্ড ছিলাম। তবে আমার সৌভাগ্য যে, আমি আমির খানের সঙ্গে দুই বছর থাকার সুযোগ পেয়েছি। ওনার থেকে আমার কাজের প্রতি অধ্যবসায় ও আগ্রহের বিষয়টি শেখা। আমির খান আমার অনুপ্রেরণা।”

নিজের ব্যর্থতা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে অভিনেতা বলেন, “ প্রাথমিকভাবে ব্যর্থ হওয়ার পর আমির আমায় বাস্তবটা দেখান। গাড়ি-বাড়ির চিন্তা বাদ দিয়ে অভিনয়ে মন দিই। আরো শিখতে চেষ্টা করি।”

এক সময় বলিউডের পরিচালকেরা তাকে কোন ছবিতে নিতে চাইতেন না। রনিতের কথায়, “ আমার ম্যানেজার একবার বলেছিলেন, আমরা কেন রনিত রায়কে কাস্টিং করব? জুনিয়র আর্টিস্টরাও তার চেয়ে ভালো।” এরপর রনিত নিজের মধ্যে একটু একটু করে পরিবর্তন আনার চেষ্টা করেন এবং যে বলিউড ইন্ডাস্ট্রি একদিন তাকে ফিরিয়ে দিয়েছিলো, সেখান থেকেই তার কাজের অফার আসতে থাকে।

বছর দুই আগে একবার সিনেমায় কাজ করার অফার এসেছিলো তার কাছে কিন্তু সিনেমাটি ভালো ছিলো না বলে, তিনি সেই অফার ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। এভাবেই গাড়ি-বাড়ি ও খ্যাতির স্বপ্ন ভুলে নিজের অভিনয় সত্তাকে বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করেছিলেন অভিনেতা এবং সে চেষ্টায় তিনি সফল।

Facebook Comments Box