ঢাকা , শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আর্জেন্টিনার হয়ে ইতিহাস গড়লেন স্কালোনি

প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : ০৬:২৫:৫৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২২
  • / ২৫৬ বার পড়া হয়েছে

স্পোর্টস ডেস্ক : ট্রাইব্রেকারে ফরাসিদের ৪-২ গোলে হারিয়ে কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ এর শিরোপা এবার মেসির হাতেই উঠলো। এর সঙ্গে সঙ্গেই আর্জেন্টাইন ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম অংশ হয়ে গেলেন লিয়নেল স্কালোনি।

এই জয়ে আর্জেন্টিনার সাবেক বিশ্বকাপ জয়ী কোচ সিজার লুইস মেনোত্তি ও কার্লোস বিলার্দোর সঙ্গে সবর্কালের সেরা আর্জেন্টাইন কোচদের বেদীতে স্থান করে নিলেন লিওনেল স্কালোনি।

২০১৮ সালে জর্জ সাম্পাওলির রাজত্ব শেষ হবার পর অস্থায়ী ভিত্তিতে আর্জেন্টাইন কোচের দায়িত্ব নেন ৪৪ বছর বয়সি স্কালোনি। পরে অবশ্য আসনটিকে নিজের করে নেন তিনি এবং তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের শিরোপা জয়ের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিয়েছেন আলবিসেলেস্তেদের।

আক্রমনাত্মক সাম্পাওলি ও গত বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার সহকারী কোচের দায়িত্ব পালন করা স্কালোনির মধ্যে সুস্পষ্ট কোন বৈপরিত্য নেই। রাশিয়া বিশ্বকাপের শেষ ষোল থেকে বিদায় নেয়ার পর আর্জেন্টিনার কোচ হিসেবে তার নিয়োগ ব্যপক সমালোচনা ও বিরোধীতার মুখে পড়েছিল। তারা মনে করেছিল যে দায়িত্ব পালনের মতো যোগ্যতা স্কালোনির নেই।

তবে আর্জেন্টিনার সাবেক কোচ প্রয়াত দিয়েগো ম্যারাডোনা বিষয়টি পর্যবেক্ষনের পর স্কালোনির চরিত্রের প্রশংসা করেছিলেন। যদিও ক্লারিন নামের এক পত্রিকায় বলা হয় ‘ট্রাফিক পরিচালনায়ও সক্ষম নন তিনি’।

প্রধান কোচ হিসেবে এর আগের কোন অভিজ্ঞতা ছিলনা স্কালোনির। তবে সাম্পাওলির উত্তর সুরি খোঁজার জন্য মাত্র দুই মাসের জন্য স্কালোনিকে দায়িত্ব দিয়ে রেখেছিল আর্জেন্টাইন ফেডারেশন। এই সময় তিনি এমন একটি ক্ষতবিক্ষত দল পেয়েছিলেন যারা ২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে পরাজিত। ২০১৫ ও ২০১৬ সালে টানা দুইবার চিলির কাছে হেরেছে কোপা আমেরিকার ফাইনাল।

এদিকে দায়িত্ব গ্রহনের পরপর স্কালোনির কাছে গুরুত্বপুর্ন হয়ে দাঁড়ায় লিওনেল মেসির ভবিষ্যৎ। যিনি ২০১৬ সালে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছিলেন। ২০১৮ সালের বিশ্বকাপে ব্যর্থতার কারণেও মেসির মোহ ভেঙ্গে গিয়েছিল।

কিন্তু দল নিয়ে স্কালোনির দৃষ্টিভঙ্গি দেখে মুগ্ধ হন মেসি। একই সঙ্গে তিনি কোচিং স্টাফ হিসেবে পেয়ে যান নিজের আইডল পাবলো আইমারকে। সেই সঙ্গে ছিলেন সাবেক সতীর্থ রবার্তো আয়ালা ও ওয়াল্টার স্যামুয়েল ।

নিজ ইমেজে জাতীয় দল গঠন করেছেন আর্জেন্টাইন এই কোচ। কাতারে অংশগ্রহনকারী ২৬ সদস্যের এই দলটির ১৯ জনই প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেয়েছেন।

১৯৮৬ বিশ্বকাপ ফাইনালের গোলদাতা জর্জ বুরুচাগা এএফপিকে বলেন, তিনি (নাহুয়েল) মোলিনা, ক্রিস্টিয়ান রোমেরো, লিসান্দ্রো মার্টিনেজ ও (এ্যালেক্সিস) ম্যাক এ্যালিস্টার এর মতো খেলোয়াড়দের আবিস্কার করেছেন। যারা দলকে একটি পরিচয় এনে দিতে সক্ষম হয়েছে এবং গত বিশ্বকাপেও লিওনেল মেসির সঙ্গে খেলার অপসন হিসেবে কাজ করেছে।

এই নিউজটি শেয়ার করুন

x

আর্জেন্টিনার হয়ে ইতিহাস গড়লেন স্কালোনি

প্রকাশের সময় : ০৬:২৫:৫৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২২

স্পোর্টস ডেস্ক : ট্রাইব্রেকারে ফরাসিদের ৪-২ গোলে হারিয়ে কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ এর শিরোপা এবার মেসির হাতেই উঠলো। এর সঙ্গে সঙ্গেই আর্জেন্টাইন ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম অংশ হয়ে গেলেন লিয়নেল স্কালোনি।

এই জয়ে আর্জেন্টিনার সাবেক বিশ্বকাপ জয়ী কোচ সিজার লুইস মেনোত্তি ও কার্লোস বিলার্দোর সঙ্গে সবর্কালের সেরা আর্জেন্টাইন কোচদের বেদীতে স্থান করে নিলেন লিওনেল স্কালোনি।

২০১৮ সালে জর্জ সাম্পাওলির রাজত্ব শেষ হবার পর অস্থায়ী ভিত্তিতে আর্জেন্টাইন কোচের দায়িত্ব নেন ৪৪ বছর বয়সি স্কালোনি। পরে অবশ্য আসনটিকে নিজের করে নেন তিনি এবং তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের শিরোপা জয়ের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিয়েছেন আলবিসেলেস্তেদের।

আক্রমনাত্মক সাম্পাওলি ও গত বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার সহকারী কোচের দায়িত্ব পালন করা স্কালোনির মধ্যে সুস্পষ্ট কোন বৈপরিত্য নেই। রাশিয়া বিশ্বকাপের শেষ ষোল থেকে বিদায় নেয়ার পর আর্জেন্টিনার কোচ হিসেবে তার নিয়োগ ব্যপক সমালোচনা ও বিরোধীতার মুখে পড়েছিল। তারা মনে করেছিল যে দায়িত্ব পালনের মতো যোগ্যতা স্কালোনির নেই।

তবে আর্জেন্টিনার সাবেক কোচ প্রয়াত দিয়েগো ম্যারাডোনা বিষয়টি পর্যবেক্ষনের পর স্কালোনির চরিত্রের প্রশংসা করেছিলেন। যদিও ক্লারিন নামের এক পত্রিকায় বলা হয় ‘ট্রাফিক পরিচালনায়ও সক্ষম নন তিনি’।

প্রধান কোচ হিসেবে এর আগের কোন অভিজ্ঞতা ছিলনা স্কালোনির। তবে সাম্পাওলির উত্তর সুরি খোঁজার জন্য মাত্র দুই মাসের জন্য স্কালোনিকে দায়িত্ব দিয়ে রেখেছিল আর্জেন্টাইন ফেডারেশন। এই সময় তিনি এমন একটি ক্ষতবিক্ষত দল পেয়েছিলেন যারা ২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে পরাজিত। ২০১৫ ও ২০১৬ সালে টানা দুইবার চিলির কাছে হেরেছে কোপা আমেরিকার ফাইনাল।

এদিকে দায়িত্ব গ্রহনের পরপর স্কালোনির কাছে গুরুত্বপুর্ন হয়ে দাঁড়ায় লিওনেল মেসির ভবিষ্যৎ। যিনি ২০১৬ সালে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছিলেন। ২০১৮ সালের বিশ্বকাপে ব্যর্থতার কারণেও মেসির মোহ ভেঙ্গে গিয়েছিল।

কিন্তু দল নিয়ে স্কালোনির দৃষ্টিভঙ্গি দেখে মুগ্ধ হন মেসি। একই সঙ্গে তিনি কোচিং স্টাফ হিসেবে পেয়ে যান নিজের আইডল পাবলো আইমারকে। সেই সঙ্গে ছিলেন সাবেক সতীর্থ রবার্তো আয়ালা ও ওয়াল্টার স্যামুয়েল ।

নিজ ইমেজে জাতীয় দল গঠন করেছেন আর্জেন্টাইন এই কোচ। কাতারে অংশগ্রহনকারী ২৬ সদস্যের এই দলটির ১৯ জনই প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেয়েছেন।

১৯৮৬ বিশ্বকাপ ফাইনালের গোলদাতা জর্জ বুরুচাগা এএফপিকে বলেন, তিনি (নাহুয়েল) মোলিনা, ক্রিস্টিয়ান রোমেরো, লিসান্দ্রো মার্টিনেজ ও (এ্যালেক্সিস) ম্যাক এ্যালিস্টার এর মতো খেলোয়াড়দের আবিস্কার করেছেন। যারা দলকে একটি পরিচয় এনে দিতে সক্ষম হয়েছে এবং গত বিশ্বকাপেও লিওনেল মেসির সঙ্গে খেলার অপসন হিসেবে কাজ করেছে।