ঢাকা , শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কাপড় বদলানোকে কেন্দ্র করে ষাটোর্ধ্ব নারীসহ হামলার শিকার ক্রেতা

প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : ০৫:৪৩:৩৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৯৮ বার পড়া হয়েছে

তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর বাজারে বিসমিল্লাহ ক্লথ স্টোরে কাপড় বদলাতে গিয়ে হামলার স্বীকার হয়েছেন এক নারীসহ দুই ক্রেতা। মঙ্গলবার (২ মার্চ) দোকান মালিকসহ কর্মচারীরা তাদের ওপর হামলা করেছেন।

জানা গেছে, কিনে নেওয়া জামা-কাপড় বললাতে আসেন ষাটোর্ধ্ব বছর বয়সী খাতুনা বেগম। কাপড় বদলানো যাবে না বলে তাকে সরিয়ে দেন দোকানের মালিক আব্দুল মন্নানের ছেলে নোমান মিয়া। আবারও অনুরোধ করলে তাকে ধাক্কা দেয় তারা। তারপর কথা কাটাকাটির ওই নারী ও ৪২ বছর বয়সী নূরুল ইসলামকে আঘাত করেন দোকানিরা।

এ অবস্থায় অন্যান্য ক্রেতারা প্রতিবাদ জানালে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠে। পরে পুলিশ ও বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দরা এসে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেন। এসময়ে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে আহতদের মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।

এদিকে রাত সাড়ে ৮টার দিকে দোকানের মালিক আব্দুল মান্নানকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের আশেপাশে পেয়ে মারধর করেন উত্তেজিত আমজনতা।

উপজেলার শমশেরনগর বাজারের কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, বিসমিল্লাহ ক্লথ স্টোরে একোন নতুন ঘটনা নয়। এরা আরও ক্রেতাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেছেন।

এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করে আহত নারীর ছেলে খসরু মিয়া বলেন, আমার আম্মা কাপড় বদলানোর জন্য আসেন। কাপড় না বদল করে বরং ঝাড়ু ও কাঠের রোল দিয়ে আঘাত করেছে। এটি কোনও ভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।

এ বিষয়ে শমশেরনগর বাজার বণিক কল্যাণ সমিতির সভাপতি মো. আব্দুল হান্নান বলেন, আমরা অভিযুক্ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে বলেছি। সুষ্ঠু সমাধান হওয়ার পর দোকান খোলা হবে।

শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ওসি (নি.) শামীম আকনজি বলেন, বিসমিল্লাহ ক্লথ স্টোর বন্ধ করে রাখা হয়েছে। রাতের মধ্যেই যদি সুষ্ঠু সমাধান না হয় তাহলে প্রয়োজনীয় আইনানুগভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ট্যাগস :

এই নিউজটি শেয়ার করুন

x

কাপড় বদলানোকে কেন্দ্র করে ষাটোর্ধ্ব নারীসহ হামলার শিকার ক্রেতা

প্রকাশের সময় : ০৫:৪৩:৩৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩ এপ্রিল ২০২৪

তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর বাজারে বিসমিল্লাহ ক্লথ স্টোরে কাপড় বদলাতে গিয়ে হামলার স্বীকার হয়েছেন এক নারীসহ দুই ক্রেতা। মঙ্গলবার (২ মার্চ) দোকান মালিকসহ কর্মচারীরা তাদের ওপর হামলা করেছেন।

জানা গেছে, কিনে নেওয়া জামা-কাপড় বললাতে আসেন ষাটোর্ধ্ব বছর বয়সী খাতুনা বেগম। কাপড় বদলানো যাবে না বলে তাকে সরিয়ে দেন দোকানের মালিক আব্দুল মন্নানের ছেলে নোমান মিয়া। আবারও অনুরোধ করলে তাকে ধাক্কা দেয় তারা। তারপর কথা কাটাকাটির ওই নারী ও ৪২ বছর বয়সী নূরুল ইসলামকে আঘাত করেন দোকানিরা।

এ অবস্থায় অন্যান্য ক্রেতারা প্রতিবাদ জানালে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠে। পরে পুলিশ ও বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দরা এসে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেন। এসময়ে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে আহতদের মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।

এদিকে রাত সাড়ে ৮টার দিকে দোকানের মালিক আব্দুল মান্নানকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের আশেপাশে পেয়ে মারধর করেন উত্তেজিত আমজনতা।

উপজেলার শমশেরনগর বাজারের কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, বিসমিল্লাহ ক্লথ স্টোরে একোন নতুন ঘটনা নয়। এরা আরও ক্রেতাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেছেন।

এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করে আহত নারীর ছেলে খসরু মিয়া বলেন, আমার আম্মা কাপড় বদলানোর জন্য আসেন। কাপড় না বদল করে বরং ঝাড়ু ও কাঠের রোল দিয়ে আঘাত করেছে। এটি কোনও ভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।

এ বিষয়ে শমশেরনগর বাজার বণিক কল্যাণ সমিতির সভাপতি মো. আব্দুল হান্নান বলেন, আমরা অভিযুক্ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে বলেছি। সুষ্ঠু সমাধান হওয়ার পর দোকান খোলা হবে।

শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ওসি (নি.) শামীম আকনজি বলেন, বিসমিল্লাহ ক্লথ স্টোর বন্ধ করে রাখা হয়েছে। রাতের মধ্যেই যদি সুষ্ঠু সমাধান না হয় তাহলে প্রয়োজনীয় আইনানুগভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।