ঢাকা , সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কিডনি বিকল, নেই একটি পা বাঁচার আকুতি নবীনগরের অসহায় হামিদার

ছবি প্রতিদিনের পোস্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রতিদিনের পোস্ট.কম || কিডনি বিকল, নেই একটি পা বাঁচার আকুতি নবীনগরের অসহায় হামিদার।

একটি কিডনি বিকল সহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে অর্থাভাবে বিনাচিকিৎসায় মৃত্যুর প্রহর গুনছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর পৌর এলাকার খাজানগর গ্রামের হামিদা বেগম। জীবনের শেষপ্রান্তে এসে অসহায় এ হামিদা উন্নত চিকিৎসার সাহায্যের জন্য বিত্তশালীদের কাছে ঘুরেও কোন সুফল পাচ্ছেন না।

অভাবের সংসারে কোনমতে জীবন যাপন করলেও উন্নত চিকিৎসা করাতে পারছেন না হামিদা বেগম। অনেক কস্টে অন্যের দেয়া খাবার খেয়ে, কখনওবা একাধারে কয়েকদিন শুধু পানি পান করে কোনমতে জীবন যাপন করেছেন হামিদা সহ তার ৪ কন্যা সন্তান। এছাড়াও একটি কিডনি বিকল হয়ে গেছে। কেটে ফেলা হয়েছে তার ডান পা । তাকে বাঁচাতে উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন। যা তার পরিবারের পক্ষে কোনভাবেই সম্ভব নয়। এখন তিনি মৃত্যু যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন।

এদিকে স্ত্রীর চিকিৎসার অর্থ জোগাতে এখানে-সেখান ছুটে বেড়াচ্ছেন অসহায় হামিদার স্বামী বৃদ্ধ লিলু মিয়া। ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে বার্ধক্যজনিত কারণে তিনিও উপার্জনহীন। লিলু মিয়া প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, একসময় শরীরে শক্তি ছিল, পরিশ্রম করতে পারতাম। এখন বয়স হইছে, কাজ ঠিকমতো করবার পাই না। এমনিতে আমাদের অভাবের সংসার। আমাদের কোন ছেলে সন্তান নেই, চার মেয়েকে নিয়ে কোনভাবে জিবন সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছি। তার মধ্যে আমার স্ত্রীর হামিদা বেগম অসুস্থতাজনিত কারনে,অর্থের অভাবে তার সঠিক চিকিৎসা করাতে পারতেছিনা।

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে হামিদার প্রতিবেশীরা প্রতিদিনের পোস্টকে জানান, প্রতিমাসে ডায়ালাইসিস করা নয়তো কিডনি প্রতিস্থাপনেরমাধ্যমে হামিদাকে বেঁচাতে হবে। কিডনি প্রতিস্থাপন করতে ছয়-সাত লাখ টাকা প্রয়োজন। প্রতিমাসে ডায়ালাইসিস করতে প্রয়োজন ২০-২৫ হাজার টাকা।যা তাদের পক্ষে ব্যয় বহন করা সম্ভবপর হবে না। তাই হামিদাকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের কাছে সহযোগিতা চান তারা। মৃত্যুপথযাত্রী হামিদাকে সহযোগীতার জন্য অনুরোধ করেছেন এলাকাবাসী । সাহায্য পাঠানোর জন্য হামিদার মেয়ে ফাতেমা বেগম যোগাযোগ বিকাশ, মোবাইল নাম্বারঃ +880 16 0939 7742

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনী এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ /প্রতিদিনের পোস্ট

Facebook Comments Box
জনপ্রিয়

কিডনি বিকল, নেই একটি পা বাঁচার আকুতি নবীনগরের অসহায় হামিদার

প্রকাশের সময় : ০৯:০৫:০১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রতিদিনের পোস্ট.কম || কিডনি বিকল, নেই একটি পা বাঁচার আকুতি নবীনগরের অসহায় হামিদার।

একটি কিডনি বিকল সহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে অর্থাভাবে বিনাচিকিৎসায় মৃত্যুর প্রহর গুনছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর পৌর এলাকার খাজানগর গ্রামের হামিদা বেগম। জীবনের শেষপ্রান্তে এসে অসহায় এ হামিদা উন্নত চিকিৎসার সাহায্যের জন্য বিত্তশালীদের কাছে ঘুরেও কোন সুফল পাচ্ছেন না।

অভাবের সংসারে কোনমতে জীবন যাপন করলেও উন্নত চিকিৎসা করাতে পারছেন না হামিদা বেগম। অনেক কস্টে অন্যের দেয়া খাবার খেয়ে, কখনওবা একাধারে কয়েকদিন শুধু পানি পান করে কোনমতে জীবন যাপন করেছেন হামিদা সহ তার ৪ কন্যা সন্তান। এছাড়াও একটি কিডনি বিকল হয়ে গেছে। কেটে ফেলা হয়েছে তার ডান পা । তাকে বাঁচাতে উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন। যা তার পরিবারের পক্ষে কোনভাবেই সম্ভব নয়। এখন তিনি মৃত্যু যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন।

এদিকে স্ত্রীর চিকিৎসার অর্থ জোগাতে এখানে-সেখান ছুটে বেড়াচ্ছেন অসহায় হামিদার স্বামী বৃদ্ধ লিলু মিয়া। ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে বার্ধক্যজনিত কারণে তিনিও উপার্জনহীন। লিলু মিয়া প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, একসময় শরীরে শক্তি ছিল, পরিশ্রম করতে পারতাম। এখন বয়স হইছে, কাজ ঠিকমতো করবার পাই না। এমনিতে আমাদের অভাবের সংসার। আমাদের কোন ছেলে সন্তান নেই, চার মেয়েকে নিয়ে কোনভাবে জিবন সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছি। তার মধ্যে আমার স্ত্রীর হামিদা বেগম অসুস্থতাজনিত কারনে,অর্থের অভাবে তার সঠিক চিকিৎসা করাতে পারতেছিনা।

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে হামিদার প্রতিবেশীরা প্রতিদিনের পোস্টকে জানান, প্রতিমাসে ডায়ালাইসিস করা নয়তো কিডনি প্রতিস্থাপনেরমাধ্যমে হামিদাকে বেঁচাতে হবে। কিডনি প্রতিস্থাপন করতে ছয়-সাত লাখ টাকা প্রয়োজন। প্রতিমাসে ডায়ালাইসিস করতে প্রয়োজন ২০-২৫ হাজার টাকা।যা তাদের পক্ষে ব্যয় বহন করা সম্ভবপর হবে না। তাই হামিদাকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের কাছে সহযোগিতা চান তারা। মৃত্যুপথযাত্রী হামিদাকে সহযোগীতার জন্য অনুরোধ করেছেন এলাকাবাসী । সাহায্য পাঠানোর জন্য হামিদার মেয়ে ফাতেমা বেগম যোগাযোগ বিকাশ, মোবাইল নাম্বারঃ +880 16 0939 7742

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনী এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ /প্রতিদিনের পোস্ট

Facebook Comments Box