ঢাকা , সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দুর্বৃত্তের আগুনে পুড়ে ছাই হতদরিদ্র মুক্তিযোদ্ধার বসতঘর

  • প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : ০৭:২৭:২৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • ৪১ বার পড়া হয়েছে

তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার জামকান্দি গ্রামের হতদরিদ্র বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলু মিয়ার (৮৫) বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। সোমবার রাত আড়াইটার দিকে অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি ঘটেছে। তিনি প্রায় দেড় মাস ধরে স্ত্রীসহ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা ও তার সন্তানদের দাবী পূর্ব-শত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষ বসত বাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে। স্থানীয় লোকজন ও দমকল বাহিনী প্রায় একঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলেও এর আগেই গবাদিপশু, আসবাবপত্রসহ বসতঘর পুড়ে অন্তত ৬ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা ফজলু মিয়ার ছেলে আলাল উদ্দিন গতকাল মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর ) চারজনের বিরুদ্ধে মৌলভীবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেছেন।
এলাকাবাসী, ভুক্তভোগী পরিবার ও দমকল বাহিনীর সূত্রে জানা গেছে, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলু মিয়া অসুস্থতা জনিত কারণে প্রায় দেড় মাস ধরে স্ত্রী’সহ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। ছেলে আলাল উদ্দিন স্ত্রী-সন্তানদের নিজের ঘরে রেখে রাতে বাবার ঘরে গিয়ে থাকতেন। মঙ্গলবার রাতে খাবার শেষে বাবার ঘরে গিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে আগুনের উত্তাপ অনুভব করে তিনি জেগে উঠে দেখেন আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়েছে। হতভম্ব হয়ে চিৎকার করায় আশপাশের লোকজন ছুটে এসে দরজা ভেঙ্গে তাকে উদ্ধার করেন। খবর পেয়ে কুলাউড়া থেকে ফায়ার সার্ভিস বাহিনীর একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় দীর্ঘ সময় চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্ত এর আগেই গবাদিপশু, আসবাবপত্রসহ বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
কুলাউড়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার সুলেমান আহমদ জানান, খবর পেয়েই তিনি একটি ইউনিট নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে যান। স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। প্রাথমিকভাবে আগুনের সূত্রপাত নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলু মিয়ার ছেলে সালাহ উদ্দিন অভিযোগ করেন, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকায় ভোট দেওয়ার জেরে একজন প্রার্থী ও তার পক্ষের লোকজন তাদেরকে মারপিট, নানাভাবে হয়রানী, হুমকি-ধমকি দিয়ে যাচ্ছে। তার মা (মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী) সায়জুন বেগম গত ১৪ সেপ্টেম্বর প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে জুড়ী থানায় অভিযোগ করেন। এরপর থেকেই তারা দেখে নেওয়ার হুমকি দিচ্ছে। এরাই বসতঘর পুড়িয়েছে। এই ঘটনায় তার ভাই আলাল উদ্দিন মঙ্গলবার আদালতে মামলা করেছেন।
Facebook Comments Box
ট্যাগস :
জনপ্রিয়

দুর্বৃত্তের আগুনে পুড়ে ছাই হতদরিদ্র মুক্তিযোদ্ধার বসতঘর

প্রকাশের সময় : ০৭:২৭:২৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার জামকান্দি গ্রামের হতদরিদ্র বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলু মিয়ার (৮৫) বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। সোমবার রাত আড়াইটার দিকে অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি ঘটেছে। তিনি প্রায় দেড় মাস ধরে স্ত্রীসহ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা ও তার সন্তানদের দাবী পূর্ব-শত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষ বসত বাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে। স্থানীয় লোকজন ও দমকল বাহিনী প্রায় একঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলেও এর আগেই গবাদিপশু, আসবাবপত্রসহ বসতঘর পুড়ে অন্তত ৬ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা ফজলু মিয়ার ছেলে আলাল উদ্দিন গতকাল মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর ) চারজনের বিরুদ্ধে মৌলভীবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেছেন।
এলাকাবাসী, ভুক্তভোগী পরিবার ও দমকল বাহিনীর সূত্রে জানা গেছে, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলু মিয়া অসুস্থতা জনিত কারণে প্রায় দেড় মাস ধরে স্ত্রী’সহ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। ছেলে আলাল উদ্দিন স্ত্রী-সন্তানদের নিজের ঘরে রেখে রাতে বাবার ঘরে গিয়ে থাকতেন। মঙ্গলবার রাতে খাবার শেষে বাবার ঘরে গিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে আগুনের উত্তাপ অনুভব করে তিনি জেগে উঠে দেখেন আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়েছে। হতভম্ব হয়ে চিৎকার করায় আশপাশের লোকজন ছুটে এসে দরজা ভেঙ্গে তাকে উদ্ধার করেন। খবর পেয়ে কুলাউড়া থেকে ফায়ার সার্ভিস বাহিনীর একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় দীর্ঘ সময় চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্ত এর আগেই গবাদিপশু, আসবাবপত্রসহ বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
কুলাউড়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার সুলেমান আহমদ জানান, খবর পেয়েই তিনি একটি ইউনিট নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে যান। স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। প্রাথমিকভাবে আগুনের সূত্রপাত নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলু মিয়ার ছেলে সালাহ উদ্দিন অভিযোগ করেন, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকায় ভোট দেওয়ার জেরে একজন প্রার্থী ও তার পক্ষের লোকজন তাদেরকে মারপিট, নানাভাবে হয়রানী, হুমকি-ধমকি দিয়ে যাচ্ছে। তার মা (মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী) সায়জুন বেগম গত ১৪ সেপ্টেম্বর প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে জুড়ী থানায় অভিযোগ করেন। এরপর থেকেই তারা দেখে নেওয়ার হুমকি দিচ্ছে। এরাই বসতঘর পুড়িয়েছে। এই ঘটনায় তার ভাই আলাল উদ্দিন মঙ্গলবার আদালতে মামলা করেছেন।
Facebook Comments Box