ঢাকা , শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দেবরের আগুনে ঝলসে যাওয়া সেই লতিফা অবশেষে মৃত্যুর কাছে হেরে গেলেন

  • প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : ০৩:৪৭:২১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মার্চ ২০২৩
  • ১০৩ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ছবি

মোঃ আলমগীর হোসেন, প্রতিদিনের পোস্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরের রসুল্লাবাদ ইউনিয়নের উত্তর দাররা গ্রামে গত রবিবার দিনে দুপুরে মাদকাসক্ত দেবরের দেয়া পেট্রোলের আগুনে ভাবী লতিফা বেগম (৪০) হাসপাতালে দুই দিন মৃত্যুর সঙ্গে যুদ্ধ করে শেষ পর্যন্ত মৃত্যুর কাছে হেরে গেলেন। তবে ঘটনার ৩ দিন পরও ঘাতক দেবর জালাল (৩৫) গ্রেপ্তার হয়নি।

এ মর্মান্তিক মৃত্যুর পর এলাকাবাসী বলেন, এমন মর্মান্তিক ঘটনা এলাকায় পূর্বে কখনোই ঘটেনি। নবীনগর থানা পুলিশের কাছে মৃতের দেবর নরপশু ও ঘাতক মাদকাসক্ত জালালকে দ্রুত গ্রেপ্তারের জোর দাবি জানাচ্ছেন । তারা জানান, এলাকায় মাদক সেবির সংখ্যা দিনদিন বেরেই চলেছে।

লতিফা বেগমের স্বামী মো. জাকারিয়া জানান, কয়েকদিন আগে আমার ছোট ভাই জালাল মিয়ার সঙ্গে কথা কাটাকাটিহয়েছিল। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ ছিল জালাল। দুপুরে আমি বাড়িতে ছিলাম না। লতিফা পিঠা তৈরি করছিল। এই সুযোগে জালাল পেছনথেকে লতিফার গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে আগুনে তার সারা শরীর ঝলসে আজ বুধবার দুপুরে চিকিৎসাধিন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

তবে নবীনগর থানার ওসি সাইফুদ্দিন আনোয়ার জানান,’পুলিশের একাধিক টিম জালালকে গ্রেপ্তারের জন্য মাঠে নেমেছে। আশা করছি, শিগগীরই তাকে আমরা গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হবো’।

উল্লেখ, গত ১৯ মার্চ দুপুরে নবীনগর উপজেলার রছুল্লাবাদ ইউপির উত্তর দাররা গ্রামে কথা কাটাকাটির জেরে লতিফা বেগম (৪০) কে পেট্রল ঢেলে পুড়িয়ে দেয় দেবর জালাল মিয়া।

পরে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটেরআইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ ২২ মার্চ দুপুরে তার মৃত্যু হয়।

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনী এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ /প্রতিদিনের পোস্ট

Facebook Comments Box
ট্যাগস :
জনপ্রিয়

দেবরের আগুনে ঝলসে যাওয়া সেই লতিফা অবশেষে মৃত্যুর কাছে হেরে গেলেন

প্রকাশের সময় : ০৩:৪৭:২১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মার্চ ২০২৩

মোঃ আলমগীর হোসেন, প্রতিদিনের পোস্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরের রসুল্লাবাদ ইউনিয়নের উত্তর দাররা গ্রামে গত রবিবার দিনে দুপুরে মাদকাসক্ত দেবরের দেয়া পেট্রোলের আগুনে ভাবী লতিফা বেগম (৪০) হাসপাতালে দুই দিন মৃত্যুর সঙ্গে যুদ্ধ করে শেষ পর্যন্ত মৃত্যুর কাছে হেরে গেলেন। তবে ঘটনার ৩ দিন পরও ঘাতক দেবর জালাল (৩৫) গ্রেপ্তার হয়নি।

এ মর্মান্তিক মৃত্যুর পর এলাকাবাসী বলেন, এমন মর্মান্তিক ঘটনা এলাকায় পূর্বে কখনোই ঘটেনি। নবীনগর থানা পুলিশের কাছে মৃতের দেবর নরপশু ও ঘাতক মাদকাসক্ত জালালকে দ্রুত গ্রেপ্তারের জোর দাবি জানাচ্ছেন । তারা জানান, এলাকায় মাদক সেবির সংখ্যা দিনদিন বেরেই চলেছে।

লতিফা বেগমের স্বামী মো. জাকারিয়া জানান, কয়েকদিন আগে আমার ছোট ভাই জালাল মিয়ার সঙ্গে কথা কাটাকাটিহয়েছিল। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ ছিল জালাল। দুপুরে আমি বাড়িতে ছিলাম না। লতিফা পিঠা তৈরি করছিল। এই সুযোগে জালাল পেছনথেকে লতিফার গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে আগুনে তার সারা শরীর ঝলসে আজ বুধবার দুপুরে চিকিৎসাধিন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

তবে নবীনগর থানার ওসি সাইফুদ্দিন আনোয়ার জানান,’পুলিশের একাধিক টিম জালালকে গ্রেপ্তারের জন্য মাঠে নেমেছে। আশা করছি, শিগগীরই তাকে আমরা গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হবো’।

উল্লেখ, গত ১৯ মার্চ দুপুরে নবীনগর উপজেলার রছুল্লাবাদ ইউপির উত্তর দাররা গ্রামে কথা কাটাকাটির জেরে লতিফা বেগম (৪০) কে পেট্রল ঢেলে পুড়িয়ে দেয় দেবর জালাল মিয়া।

পরে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটেরআইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ ২২ মার্চ দুপুরে তার মৃত্যু হয়।

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনী এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ /প্রতিদিনের পোস্ট

Facebook Comments Box