ঢাকা , সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নবীনগরে মেঘনা নদীতে বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে গোলাগুলি, আহত ৩

ছবি: প্রতিদিনের পোস্ট

মো. আলমগীর  হোসেন, নবীনগর: ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার মেঘনা নদী থেকে বালু উত্তোলনকালে মেসার্স মুন্সি এন্টারপ্রাইজের বালু মহালের কর্মরত শ্রমিকদের উপর দুর্বৃত্তরা ফাঁকা গুলি ছিটায়। এ ঘটনায় তিনজন গুলিবিদ্ধসহ একাধিক লোক আহত হয়েছে।

রবিবার (১৭ ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার বড়িকান্দি ইউনিয়নের সোনাবালুয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, উপজেলার বড়িকান্দি ইউনিয়নের মুক্তারামপুর গ্রামের রইস মিয়ার ছেলে সোহেল (৩৫), ধরাভাঙ্গা গ্রামের মৃত ফজলু মিয়ার ছেলে মকবুল (৪৫), বাবুল মিয়ার ছেলে তামিম (২৮)। আহতদের মধ্যে সোহেল ও তামিম নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন, আহত অন্যজন মকবুল মিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে।

সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুরে সলিমগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) মো. ইমরান হোসেন প্রতিদিনের পোস্টকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় ও বিশেষ সূত্রে জানা যায়, বড়িকান্দি ইউনিয়নের জাফরাবাদ মৌজায় মেঘনা নদী থেকে সম্প্রতি প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে বালু উত্তোলনের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত শোভনের মালিকানাধীন মুন্সি এন্টারপ্রাইজ ইজারা পায়। ইজারাদারের শ্রমিকরা মেঘনা নদীর জাফরাবাদ ও নতুনচর বালুমহাল থেকে বালু উত্তোলন শুরু করে। ইজারাদারের লোকজন অভিযোগ করে জানায়, বালু উত্তোলন শুরুর পর থেকেই পার্শ্ববর্তী নরসিংদী রায়পুরা উপজেলার চরমধুয়া ইউনিয়নের কিছু লোকজন মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছিল। পরে রবিবার সন্ধ্যায় সশস্ত্র দুর্বৃত্তরা নৌকা ও স্পিডবোট যোগে বালু মহালে অতর্কিত হামলা চালায়। এ ঘটনায় তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়।

ইজারাদার শাহাদাত হোসেন শোভন প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, ইজারা পাওয়ার পর থেকেই পার্শ্ববর্তী রায়পুরার কিছু সন্ত্রাসী মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছিল। চাঁদা না পেয়ে রবিবার সন্ধ্যার পর পর এ সন্ত্রাসী হামলা চালায়।

এ বিষয়ে রায়পুরার চরমধুয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আহসান শিকদার প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, এই বালু মহালে ৩% শেয়ার সূত্রে আমিও মালিক। এই ঘটনা আমি শুনেছি কিন্তু কে বা কারা এই হামলা চালিয়েছে আমার জানা নেই। তবে আমি এ বিষয়ে খোঁজ-খবর নিচ্ছি।

এ বিষয়ে নবীনগর ইউএনও তানভীর ফরহাদ শামীম প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। পার্শ্ববর্তী রায়পুরা উপজেলার কিছু দুর্বৃত্ত নবীনগর সীমানায় এসে এই হামলা চালিয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়েছে, এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নবীনগর সার্কেল) সিরাজুল ইসলাম প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক। বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments Box
জনপ্রিয়

নবীনগরে মেঘনা নদীতে বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে গোলাগুলি, আহত ৩

প্রকাশের সময় : ০৩:২০:২৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২৩

মো. আলমগীর  হোসেন, নবীনগর: ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার মেঘনা নদী থেকে বালু উত্তোলনকালে মেসার্স মুন্সি এন্টারপ্রাইজের বালু মহালের কর্মরত শ্রমিকদের উপর দুর্বৃত্তরা ফাঁকা গুলি ছিটায়। এ ঘটনায় তিনজন গুলিবিদ্ধসহ একাধিক লোক আহত হয়েছে।

রবিবার (১৭ ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার বড়িকান্দি ইউনিয়নের সোনাবালুয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, উপজেলার বড়িকান্দি ইউনিয়নের মুক্তারামপুর গ্রামের রইস মিয়ার ছেলে সোহেল (৩৫), ধরাভাঙ্গা গ্রামের মৃত ফজলু মিয়ার ছেলে মকবুল (৪৫), বাবুল মিয়ার ছেলে তামিম (২৮)। আহতদের মধ্যে সোহেল ও তামিম নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন, আহত অন্যজন মকবুল মিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে।

সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুরে সলিমগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) মো. ইমরান হোসেন প্রতিদিনের পোস্টকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় ও বিশেষ সূত্রে জানা যায়, বড়িকান্দি ইউনিয়নের জাফরাবাদ মৌজায় মেঘনা নদী থেকে সম্প্রতি প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে বালু উত্তোলনের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত শোভনের মালিকানাধীন মুন্সি এন্টারপ্রাইজ ইজারা পায়। ইজারাদারের শ্রমিকরা মেঘনা নদীর জাফরাবাদ ও নতুনচর বালুমহাল থেকে বালু উত্তোলন শুরু করে। ইজারাদারের লোকজন অভিযোগ করে জানায়, বালু উত্তোলন শুরুর পর থেকেই পার্শ্ববর্তী নরসিংদী রায়পুরা উপজেলার চরমধুয়া ইউনিয়নের কিছু লোকজন মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছিল। পরে রবিবার সন্ধ্যায় সশস্ত্র দুর্বৃত্তরা নৌকা ও স্পিডবোট যোগে বালু মহালে অতর্কিত হামলা চালায়। এ ঘটনায় তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়।

ইজারাদার শাহাদাত হোসেন শোভন প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, ইজারা পাওয়ার পর থেকেই পার্শ্ববর্তী রায়পুরার কিছু সন্ত্রাসী মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছিল। চাঁদা না পেয়ে রবিবার সন্ধ্যার পর পর এ সন্ত্রাসী হামলা চালায়।

এ বিষয়ে রায়পুরার চরমধুয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আহসান শিকদার প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, এই বালু মহালে ৩% শেয়ার সূত্রে আমিও মালিক। এই ঘটনা আমি শুনেছি কিন্তু কে বা কারা এই হামলা চালিয়েছে আমার জানা নেই। তবে আমি এ বিষয়ে খোঁজ-খবর নিচ্ছি।

এ বিষয়ে নবীনগর ইউএনও তানভীর ফরহাদ শামীম প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। পার্শ্ববর্তী রায়পুরা উপজেলার কিছু দুর্বৃত্ত নবীনগর সীমানায় এসে এই হামলা চালিয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়েছে, এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নবীনগর সার্কেল) সিরাজুল ইসলাম প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক। বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments Box