ঢাকা , শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নবীনগরে শোক সভার অনুষ্ঠানে তবারক বিতরণে বিশৃঙ্খলা

মোঃ আলমগীর খন্দকার, প্রতিদিনের পোস্ট: আওয়ামীলীগ নেতা ব্যারিস্টার নজরুল ইসলাম নবীর আয়োজনে বুধবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর পৌর এলাকার বড় বাজারে শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। ওই শোকসভা পালনকালে বাজারের অর্ধশতাধিক ব্যবসায়ীর ব্যবসা বন্ধ করে দেয়া হয়। এসময় বাজারে তীব্র যানজট সৃষ্টি হলে সাধারণ মানুষের ভোগান্তির পাশাপাশি বাজারের মধ্যে দিয়ে প্রায় ২ ঘন্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের মাঝে। এছাড়াও অনুষ্ঠানের তবারক বিতরণে ব্যাপক হট্টগোল ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হলে এসময় উপস্থিত পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। যদিও ওই সভায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের কোন নেতাকর্মীকে উপস্থিত থাকতে দেখা যায়নি। উক্ত শোক সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি ইসহাক আহমেদ প্রমুখ।

এ বিষয়ে ব্যারিস্টার নজরুল ইসলাম নবী প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, আমি বাজার কমিটির সভাপতির কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছি। শোক সভায় কোন হট্টগোল হয়নি, আর অনুষ্ঠান করতে গেলে স্বাভাবিক একটু যানজট হতেই পারে। আপনার আয়োজিত শোক সভায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের কোন নেতাকর্মীকে দেখা যায়নি, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি সবাইকেই দাওয়াত দিয়েছি, আসা না আসা তাদের ব্যাপার।

ফল বিক্রেতা রেজাউল প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, বিশৃঙ্খলার কারণে আমার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় এবং আমার বাম পায়ে প্রচণ্ড ব্যথা পায়।

এদিকে বাজার কমিটির সভাপতি মনির হোসেন প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, উনি আমার কাছ থেকে অনুমতি নিতে আসলে আমি শোক সভাটি অন্য স্থানে করার কথা বলি। উনি আমার সাথে তরকা তরকির একপর্যায়ে ব্যবসায়ীদেরকে অবৈধ বলে অনুমতি না নিয়ে জোরপূর্বক সরিয়ে শোক সভাটির আয়োজন করেন।

Facebook Comments Box
জনপ্রিয়

নবীনগরে শোক সভার অনুষ্ঠানে তবারক বিতরণে বিশৃঙ্খলা

প্রকাশের সময় : ০৭:১৮:৩৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ অগাস্ট ২০২৩

মোঃ আলমগীর খন্দকার, প্রতিদিনের পোস্ট: আওয়ামীলীগ নেতা ব্যারিস্টার নজরুল ইসলাম নবীর আয়োজনে বুধবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর পৌর এলাকার বড় বাজারে শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। ওই শোকসভা পালনকালে বাজারের অর্ধশতাধিক ব্যবসায়ীর ব্যবসা বন্ধ করে দেয়া হয়। এসময় বাজারে তীব্র যানজট সৃষ্টি হলে সাধারণ মানুষের ভোগান্তির পাশাপাশি বাজারের মধ্যে দিয়ে প্রায় ২ ঘন্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের মাঝে। এছাড়াও অনুষ্ঠানের তবারক বিতরণে ব্যাপক হট্টগোল ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হলে এসময় উপস্থিত পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। যদিও ওই সভায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের কোন নেতাকর্মীকে উপস্থিত থাকতে দেখা যায়নি। উক্ত শোক সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি ইসহাক আহমেদ প্রমুখ।

এ বিষয়ে ব্যারিস্টার নজরুল ইসলাম নবী প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, আমি বাজার কমিটির সভাপতির কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছি। শোক সভায় কোন হট্টগোল হয়নি, আর অনুষ্ঠান করতে গেলে স্বাভাবিক একটু যানজট হতেই পারে। আপনার আয়োজিত শোক সভায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের কোন নেতাকর্মীকে দেখা যায়নি, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি সবাইকেই দাওয়াত দিয়েছি, আসা না আসা তাদের ব্যাপার।

ফল বিক্রেতা রেজাউল প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, বিশৃঙ্খলার কারণে আমার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় এবং আমার বাম পায়ে প্রচণ্ড ব্যথা পায়।

এদিকে বাজার কমিটির সভাপতি মনির হোসেন প্রতিদিনের পোস্টকে বলেন, উনি আমার কাছ থেকে অনুমতি নিতে আসলে আমি শোক সভাটি অন্য স্থানে করার কথা বলি। উনি আমার সাথে তরকা তরকির একপর্যায়ে ব্যবসায়ীদেরকে অবৈধ বলে অনুমতি না নিয়ে জোরপূর্বক সরিয়ে শোক সভাটির আয়োজন করেন।

Facebook Comments Box