০৩:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ মে ২০২৩, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

“নয়াপল্টনের ঘটনার নিন্দা জানিয়ে যা বললেন:চরমোনাই”

  • Khalid Hasan Ripu
  • আপডেট : ০৪:৫১:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২২
  • ৭৬ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রতিদিনের পোস্ট || নয়াপল্টনের ঘটনার নিন্দা জানিয়ে যা বললেন:চরমোনাই|

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের ভূমিকার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।

বুধবার গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে দলটির আমীর ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম বলেছেন, বহুদলীয় রাজনীতি এবং ক্ষমতাসীন দলের কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে মিছিল-সমাবেশ করা এমনকি ক্ষমতা পরিবর্তনের চেষ্টা করা বাংলাদেশের সংবিধান মতেই বিধিসিদ্ধ।

তিনি বলেন, একটি স্বাধীন দেশের রাজনীতিতে বিরোধী দলসমূহ সমাবেশ করবে, মিছিল করবে এটা খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার এবং সেসব সমাবেশে নিরাপত্তা দেওয়া, সমাবেশে উপস্থিত জনতার যাতায়াত সহজ করে দেওয়া যেকোনো সভ্য রাষ্ট্রের সরকারের মৌলিক দায়িত্বের অংশ। বাংলাদেশের মতো একটা দেশ যা কিনা একটি জনযুদ্ধের মধ্যে দিয়ে স্বাধীনতা অর্জন করেছে সেই দেশে এসব অধিকার চর্চিত হবে বলেই জনতা আশা করে।

চরমোনাই পীর বলেন, কিন্তু অতীব দুঃখের সঙ্গে পরিলক্ষিত হচ্ছে যে, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার একটি গণপ্রজাতন্ত্রী স্বাধীন রাষ্ট্রের এসব মৌলিক অধিকারসমূহকে নির্মমভাবে হরণ করেই যাচ্ছে। তারা বিরোধী দলের শান্তিপূর্ণ সমাবেশগুলোতে পরোক্ষ ও প্রত্যক্ষ নানাভাবে বাধাগ্রস্ত করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় আসন্ন ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় বিরোধী দলের সমাবেশকে কেন্দ্র করে তারা একটি উত্তেজনাপূর্ণ সহিংস পরিস্থিতি তৈরি করেছে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার ৫২তম বছরে এসে বিরোধীদের সমাবেশ করার মতো স্বাভাবিক বিষয়কে কেন্দ্র করে যে যুদ্ধাবস্থা তৈরি করা হয়েছে, যেভাবে ধরপাকড় করা হচ্ছে, যেভাবে হামলা-মামলা ও গুলি করে বিরোধী মতের নেতাকে হত্যা করা হচ্ছে তা অকল্পনীয়। আমরা এর তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছি।

মুফতি রেজাউল করীম আরও বলেন, আমরা সরকারি দলকে আহবান করব, বিরোধীদের যেকোন শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকে সহায়তা করুন। স্পষ্ট করে বললে, আগামী ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশকে বাধামুক্ত করতে যা যা করণীয় তাই করুন। আর বিরোধী দলকে আহবান করব, আপনাদের সাম্প্রতিক সমাবেশগুলোর মতো ঢাকার সমাবেশকেও শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর রাখতে রাজনৈতিক বাগাড়ম্বর বাদ দিন।

তিনি বলেন, আজ ৭ ডিসেম্বর নয়াপল্টনে যে ঘটনা ঘটেছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ তার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে। আমরা মনে করি, এ ঘটনা দেশের স্বাধীন মর্যাদা ও নাগরিক অধিকারের প্রতি নির্মম সহিংসতা; যা কোনো সভ্য দেশে হতে পারে না। এ ধরনের বাড়াবাড়ি অবশ্যই পরিহার করতে হবে।

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ । রিপু /প্রতিদিনের পোস্ট

Facebook Comments Box
সম্পাদনাকারীর তথ্য

Khalid Hasan Ripu

error: Content is protected !!

“নয়াপল্টনের ঘটনার নিন্দা জানিয়ে যা বললেন:চরমোনাই”

আপডেট : ০৪:৫১:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রতিদিনের পোস্ট || নয়াপল্টনের ঘটনার নিন্দা জানিয়ে যা বললেন:চরমোনাই|

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের ভূমিকার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।

বুধবার গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে দলটির আমীর ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম বলেছেন, বহুদলীয় রাজনীতি এবং ক্ষমতাসীন দলের কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে মিছিল-সমাবেশ করা এমনকি ক্ষমতা পরিবর্তনের চেষ্টা করা বাংলাদেশের সংবিধান মতেই বিধিসিদ্ধ।

তিনি বলেন, একটি স্বাধীন দেশের রাজনীতিতে বিরোধী দলসমূহ সমাবেশ করবে, মিছিল করবে এটা খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার এবং সেসব সমাবেশে নিরাপত্তা দেওয়া, সমাবেশে উপস্থিত জনতার যাতায়াত সহজ করে দেওয়া যেকোনো সভ্য রাষ্ট্রের সরকারের মৌলিক দায়িত্বের অংশ। বাংলাদেশের মতো একটা দেশ যা কিনা একটি জনযুদ্ধের মধ্যে দিয়ে স্বাধীনতা অর্জন করেছে সেই দেশে এসব অধিকার চর্চিত হবে বলেই জনতা আশা করে।

চরমোনাই পীর বলেন, কিন্তু অতীব দুঃখের সঙ্গে পরিলক্ষিত হচ্ছে যে, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার একটি গণপ্রজাতন্ত্রী স্বাধীন রাষ্ট্রের এসব মৌলিক অধিকারসমূহকে নির্মমভাবে হরণ করেই যাচ্ছে। তারা বিরোধী দলের শান্তিপূর্ণ সমাবেশগুলোতে পরোক্ষ ও প্রত্যক্ষ নানাভাবে বাধাগ্রস্ত করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় আসন্ন ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় বিরোধী দলের সমাবেশকে কেন্দ্র করে তারা একটি উত্তেজনাপূর্ণ সহিংস পরিস্থিতি তৈরি করেছে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার ৫২তম বছরে এসে বিরোধীদের সমাবেশ করার মতো স্বাভাবিক বিষয়কে কেন্দ্র করে যে যুদ্ধাবস্থা তৈরি করা হয়েছে, যেভাবে ধরপাকড় করা হচ্ছে, যেভাবে হামলা-মামলা ও গুলি করে বিরোধী মতের নেতাকে হত্যা করা হচ্ছে তা অকল্পনীয়। আমরা এর তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছি।

মুফতি রেজাউল করীম আরও বলেন, আমরা সরকারি দলকে আহবান করব, বিরোধীদের যেকোন শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকে সহায়তা করুন। স্পষ্ট করে বললে, আগামী ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশকে বাধামুক্ত করতে যা যা করণীয় তাই করুন। আর বিরোধী দলকে আহবান করব, আপনাদের সাম্প্রতিক সমাবেশগুলোর মতো ঢাকার সমাবেশকেও শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর রাখতে রাজনৈতিক বাগাড়ম্বর বাদ দিন।

তিনি বলেন, আজ ৭ ডিসেম্বর নয়াপল্টনে যে ঘটনা ঘটেছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ তার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে। আমরা মনে করি, এ ঘটনা দেশের স্বাধীন মর্যাদা ও নাগরিক অধিকারের প্রতি নির্মম সহিংসতা; যা কোনো সভ্য দেশে হতে পারে না। এ ধরনের বাড়াবাড়ি অবশ্যই পরিহার করতে হবে।

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ । রিপু /প্রতিদিনের পোস্ট

Facebook Comments Box