ঢাকা , শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নির্বাচনী প্রচারণায় প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যবহারের দায়ে জরিমানা, প্রার্থীকে শোকজ

মো. আলমগীর খন্দকার
  • প্রকাশের সময় : ১১:৫৪:৩৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪
  • / ৫৭ বার পড়া হয়েছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার আসন্ন নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে এক প্রার্থীর সমর্থককে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার (২৭ মে) বিকেলে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহমুদা আক্তার শিউলীর সমর্থক হেলাল ইসলাম নামে এক ফেইসবুক ব্যবহারকারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবির সঙ্গে  ফুটবল মার্কার ছবি যুক্ত করে ফেইসবুকে পোস্ট দেওয়ায় উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬ এর ধারায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এসময় প্রার্থী ও সমর্থকদের নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলতে নির্দেশ প্রদান করা হয়। এছাড়াও এই প্রার্থীর পক্ষে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়া আরও দুজনকে মঙ্গলবার তলব করা হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাচন-আচরণ বিধিমালার দায়িত্বে নিয়োজিত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নবীনগর উপজেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আবু মুছা।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, সোমবার বিকেলে নির্বাচনী আচরণবিধি প্রতিপালন সংক্রান্ত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়েছে। এসময় এক প্রার্থীর সমর্থকে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। প্রার্থী ও সমর্থকদের নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলতে সতর্ক করা হয়েছে।

এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যবহার করে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালানোর অভিযোগে নবীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার শিউলিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। সোমবার দুপুরে তাকে এই নোটিশ দেওয়া হয়। ২৪ ঘন্টার মধ্যে তার কাছে নোটিশের জবাব চাওয়া হয়েছে।

নবীনগর উপজেলা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন স্বাক্ষরিত কারণ দর্শানোর নোটিশে বলা হয়, আপনি নবীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী হিসেবে মনোনীত হয়েছেন৷ আপনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ছবিসহ নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। যা উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬ এর বিধি ৮ (৫) এর পরিপন্থী। যার সুনির্দিষ্ট তথ্যচিত্র ও প্রমাণাদি রয়েছে।

এমতাবস্থায় আপনার বিরুদ্ধে উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) ২০১৬ এর বিধি ৩২ অনুযায়ী কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না ও বিধি ৩৩ অনুযায়ী কেন প্রার্থীতা বাতিলের সুপারিশ করা হবে না তা আগামী ২৮/০৫/২০২৪ দুপুর ১২ ঘটিকার মধ্যে নিম্ন স্বাক্ষরকারীর কার্যালয়ে স্বশরীরে  উপস্থিত হয়ে লিখিতভাবে কারণ দর্শানোর জন্য বলা হলো।

নোটিশের অনুলিপি নির্বাচন কমিশনের সচিব, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, আঞ্চলিক, জেলা ও সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এবং নবীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছে।

ট্যাগস :

এই নিউজটি শেয়ার করুন

নির্বাচনী প্রচারণায় প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যবহারের দায়ে জরিমানা, প্রার্থীকে শোকজ

প্রকাশের সময় : ১১:৫৪:৩৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার আসন্ন নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে এক প্রার্থীর সমর্থককে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার (২৭ মে) বিকেলে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহমুদা আক্তার শিউলীর সমর্থক হেলাল ইসলাম নামে এক ফেইসবুক ব্যবহারকারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবির সঙ্গে  ফুটবল মার্কার ছবি যুক্ত করে ফেইসবুকে পোস্ট দেওয়ায় উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬ এর ধারায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এসময় প্রার্থী ও সমর্থকদের নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলতে নির্দেশ প্রদান করা হয়। এছাড়াও এই প্রার্থীর পক্ষে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়া আরও দুজনকে মঙ্গলবার তলব করা হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাচন-আচরণ বিধিমালার দায়িত্বে নিয়োজিত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নবীনগর উপজেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আবু মুছা।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, সোমবার বিকেলে নির্বাচনী আচরণবিধি প্রতিপালন সংক্রান্ত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়েছে। এসময় এক প্রার্থীর সমর্থকে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। প্রার্থী ও সমর্থকদের নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলতে সতর্ক করা হয়েছে।

এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যবহার করে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালানোর অভিযোগে নবীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার শিউলিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। সোমবার দুপুরে তাকে এই নোটিশ দেওয়া হয়। ২৪ ঘন্টার মধ্যে তার কাছে নোটিশের জবাব চাওয়া হয়েছে।

নবীনগর উপজেলা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন স্বাক্ষরিত কারণ দর্শানোর নোটিশে বলা হয়, আপনি নবীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী হিসেবে মনোনীত হয়েছেন৷ আপনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ছবিসহ নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। যা উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬ এর বিধি ৮ (৫) এর পরিপন্থী। যার সুনির্দিষ্ট তথ্যচিত্র ও প্রমাণাদি রয়েছে।

এমতাবস্থায় আপনার বিরুদ্ধে উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) ২০১৬ এর বিধি ৩২ অনুযায়ী কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না ও বিধি ৩৩ অনুযায়ী কেন প্রার্থীতা বাতিলের সুপারিশ করা হবে না তা আগামী ২৮/০৫/২০২৪ দুপুর ১২ ঘটিকার মধ্যে নিম্ন স্বাক্ষরকারীর কার্যালয়ে স্বশরীরে  উপস্থিত হয়ে লিখিতভাবে কারণ দর্শানোর জন্য বলা হলো।

নোটিশের অনুলিপি নির্বাচন কমিশনের সচিব, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, আঞ্চলিক, জেলা ও সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এবং নবীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছে।