ঢাকা , শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

“বাজেভাবে শারীরিক আঘাতের শিকার হয়েছি :সারিকা”

রিপু
  • প্রকাশের সময় : ০৫:৫১:১৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর ২০২২
  • / ১৩৫ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রতিদিনের পোস্ট || বাজেভাবে শারীরিক আঘাতের শিকার হয়েছি :সারিকা|

স্বামীর হাতে বাজেভাবে শারীরিক আঘাতের শিকার হয়েছেন অভিনেত্রী সারিকা। শুধু তাই নয়, আকদের আগেই স্বামী রাহী সারিকার গায়ে হাত তুলেছেন। যদিও ভেবেছিলেন, বিয়ের পর শুধরে যাবেন রাহী। কিন্তু সেটা তো দূরের কথা, উল্টো খুবই বাজেভাবে শারীরিক আঘাত করেছেন স্বামী জি এস বদরুদ্দিন আহমেদ (রাহী)।

এমনটাই জানালেন টেলিভিশনের জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী সারিকা সাবা। সম্প্রতি মারধর ও যৌতুক দাবির অভিযোগ এনে স্বামী জি এস বদরুদ্দিন আহমেদ রাহীর বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছে।

গত সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম ফারাহ দিবা ছন্দার আদালতে মামলা করেন অভিনেত্রী। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে বদরুদ্দিন আহমেদ রাহীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। সারিকার আইনজীবী মাসুদুর রহমান মাসুদ বিষয়টি জানিয়েছেন। পরে কালের কণ্ঠকে মামলার বিষয়ে বিশদ বলেন সারিকা নিজেই।

জানা গেছে, সংসারজীবনে অতিষ্ঠ সারিকা বিচ্ছেদের পথেই হাঁটছেন। স্বামী নির্যাতন করত জানিয়ে এই অভিনেত্রী বলছেন, ‘সে (রাহী) আমাকে শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক-সব দিকেই টর্চার করেছে। আমি তার স্ত্রী, আমি একজন শিল্পী, আমাকে সে যেভাবে টর্চার করেছে তা সহ্য করার মতো নয়। ’

আকদ হওয়ার আগেই গায়ে হাত তুলেছিলেন রাহী, এমনটাই জানিয়ে কালের কণ্ঠকে সারিকা বলেন, ‘ভেবেছিলাম বিয়ের পর সব ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু না, বিয়ের পর উল্টো নানাভাবেই আমাকে আঘাত করেছে। আমি আইনের আশ্রয় নিয়েছি। অনেক কথাই বলার আছে আমার। সেসব এখনই বলতে পারছি না। তবে এটুকু বলব, পারিবারিকভাবে আমি সমাধানের চেষ্টা করেছি; কিন্তু সে সুযোগ আমাকে দেওয়া হয়নি। যার ফলে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছি। ’

একসময়ের জনপ্রিয় মডেল সারিকা বলেন, ‘আমাদের বিয়ের সময় ২০ লাখ টাকা দেনমোহর ধার্য করা হয়। আমার পরিবারের পক্ষ থেকে ২৫ লাখ টাকার স্বর্ণালংকার, আসবাবসহ সাংসারিক জিনিসপত্র দেওয়া হয়। বিয়ের কয়েক দিন যেতে না যেতেই সে আমার কাছে ৫০ লাখ টাকা দাবি করে। আমার পরিবার থেকে তার জন্য টাকা আনতে বলে। আমি রাজি হইনি বলে সে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে, মারধর করে। এই মারধরের ঘটনা ঘটেই যাচ্ছিল, যার ফলে মামলা করতে বাধ্য হই। ’

সারিকা ২০০৬ সালে মডেলিং শুরু করেন। তারপর একটি মুঠোফোন সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে রাতারাতি তারকা বনে যান। ২০১০ সালে নির্মাতা আশুতোষ সুজনের ‘ক্যামেলিয়া’ নাটকের মাধ্যমে অভিনয়জীবন শুরু করেন।

রাহীর সঙ্গে সারিকার এটি দ্বিতীয় বিয়ে। গত ২ ফেব্রুয়ারি দুই পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে এ বিয়ের আয়োজন সম্পন্ন হয়।

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ । রিপু /প্রতিদিনের পোস্ট

এই নিউজটি শেয়ার করুন

x

“বাজেভাবে শারীরিক আঘাতের শিকার হয়েছি :সারিকা”

প্রকাশের সময় : ০৫:৫১:১৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রতিদিনের পোস্ট || বাজেভাবে শারীরিক আঘাতের শিকার হয়েছি :সারিকা|

স্বামীর হাতে বাজেভাবে শারীরিক আঘাতের শিকার হয়েছেন অভিনেত্রী সারিকা। শুধু তাই নয়, আকদের আগেই স্বামী রাহী সারিকার গায়ে হাত তুলেছেন। যদিও ভেবেছিলেন, বিয়ের পর শুধরে যাবেন রাহী। কিন্তু সেটা তো দূরের কথা, উল্টো খুবই বাজেভাবে শারীরিক আঘাত করেছেন স্বামী জি এস বদরুদ্দিন আহমেদ (রাহী)।

এমনটাই জানালেন টেলিভিশনের জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী সারিকা সাবা। সম্প্রতি মারধর ও যৌতুক দাবির অভিযোগ এনে স্বামী জি এস বদরুদ্দিন আহমেদ রাহীর বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছে।

গত সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম ফারাহ দিবা ছন্দার আদালতে মামলা করেন অভিনেত্রী। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে বদরুদ্দিন আহমেদ রাহীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। সারিকার আইনজীবী মাসুদুর রহমান মাসুদ বিষয়টি জানিয়েছেন। পরে কালের কণ্ঠকে মামলার বিষয়ে বিশদ বলেন সারিকা নিজেই।

জানা গেছে, সংসারজীবনে অতিষ্ঠ সারিকা বিচ্ছেদের পথেই হাঁটছেন। স্বামী নির্যাতন করত জানিয়ে এই অভিনেত্রী বলছেন, ‘সে (রাহী) আমাকে শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক-সব দিকেই টর্চার করেছে। আমি তার স্ত্রী, আমি একজন শিল্পী, আমাকে সে যেভাবে টর্চার করেছে তা সহ্য করার মতো নয়। ’

আকদ হওয়ার আগেই গায়ে হাত তুলেছিলেন রাহী, এমনটাই জানিয়ে কালের কণ্ঠকে সারিকা বলেন, ‘ভেবেছিলাম বিয়ের পর সব ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু না, বিয়ের পর উল্টো নানাভাবেই আমাকে আঘাত করেছে। আমি আইনের আশ্রয় নিয়েছি। অনেক কথাই বলার আছে আমার। সেসব এখনই বলতে পারছি না। তবে এটুকু বলব, পারিবারিকভাবে আমি সমাধানের চেষ্টা করেছি; কিন্তু সে সুযোগ আমাকে দেওয়া হয়নি। যার ফলে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছি। ’

একসময়ের জনপ্রিয় মডেল সারিকা বলেন, ‘আমাদের বিয়ের সময় ২০ লাখ টাকা দেনমোহর ধার্য করা হয়। আমার পরিবারের পক্ষ থেকে ২৫ লাখ টাকার স্বর্ণালংকার, আসবাবসহ সাংসারিক জিনিসপত্র দেওয়া হয়। বিয়ের কয়েক দিন যেতে না যেতেই সে আমার কাছে ৫০ লাখ টাকা দাবি করে। আমার পরিবার থেকে তার জন্য টাকা আনতে বলে। আমি রাজি হইনি বলে সে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে, মারধর করে। এই মারধরের ঘটনা ঘটেই যাচ্ছিল, যার ফলে মামলা করতে বাধ্য হই। ’

সারিকা ২০০৬ সালে মডেলিং শুরু করেন। তারপর একটি মুঠোফোন সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে রাতারাতি তারকা বনে যান। ২০১০ সালে নির্মাতা আশুতোষ সুজনের ‘ক্যামেলিয়া’ নাটকের মাধ্যমে অভিনয়জীবন শুরু করেন।

রাহীর সঙ্গে সারিকার এটি দ্বিতীয় বিয়ে। গত ২ ফেব্রুয়ারি দুই পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে এ বিয়ের আয়োজন সম্পন্ন হয়।

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ । রিপু /প্রতিদিনের পোস্ট