ঢাকা , বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
‘বেরোবিতে পুলিশের গু’ লিতে নি, হত ১, আহত শতাধিক’ মৌলভীবাজারের বিশিষ্ট জনদের আন্তর্জাতিক গনতন্ত্র ও মানবাধিকার সংগঠনে মনোনীত নিজ গ্রাম থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করলেন মেয়র প্রার্থী আওয়ামিলীগ নেতা সফিকুল ইসলাম শ্রীমঙ্গলে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে যুবককে হত্যা নবীনগর থানা প্রেসক্লাবের ত্রি-বার্ষিক কমিটি গঠন সভাপতি জসিম সম্পাদক রুবেল আইনমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে গিয়ে মেয়র ও চেয়ারম্যান গ্রুপের সংঘর্ষ নবীনগরে ইউপি চেয়ারম্যান নুরে আলমের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে সাংবাদিক সম্মেলন মাথিউড়া চা শ্রমিকদের বকেয়া মজুরি পরিশোধের দাবি গাজীপুরে কাভার ভ্যানের ধাক্কায় ধনেপাতার চাষীর মৃত্যু শ্রীমঙ্গলে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের রথযাত্রা উৎসব পালিত

বানিয়াচং মাদকের হাতে নৌ পুলিশ সদস্য নি’হত

স্বপন রবি দাশ, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : ০৩:৪০:৩০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩
  • / ১৬৬ বার পড়া হয়েছে

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার ৫নং দৌলতপুর ইউনিয়নের মার্কুলি বাজারে এক মাদকসেবীর হাতে জাহাঙ্গীর নামে নৌ পুলিশ ফাঁড়ির সদস্য নি’হত হয়েছেন। নি’হত জাহাঙ্গীরের বাড়ি কিশোরগঞ্জে। সে গত সোমবার(৩০জানুয়ারি) রাত ৮টার দিকে মার্কুলি বাজারের দুলাল ভ্যারাইটিজ স্টোরে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায় ,উল্লিখিত সময়ে কনস্টেবল শাওন ও জাহাঙ্গীর দোকানে বসা ছিলেন। এসময় হুট করে ভবঘুরে মাদকসেবী পলক দাস এসে জাহাঙ্গীরের মাথার ডান দিকে স্টিলের টেইপ দিয়ে সজোরে আঘাত করে। এক পর্যায়ে দোকানের বাহিরে গিয়ে অপর পুলিশ সদস্য পলক দাসকে ধরে ফেলেন।

এমতাবস্থায় দস্তাদস্তির একফাঁকে পুলিশ সদস্য জাহাঙ্গীর মাটি পড়ে যান। পরে আস পাশের লোকজন এসে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য স্থানীয় একটি ফার্মেসীতে নিয়ে যান। সেখানে তার অবস্থার বেগতিক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাত সাড়ে ৯টার দিকে অ্যাম্বুলেন্স যোগে সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে পাঠালে সেখানে মৃ’ত্যুর কোলে ঢলে পড়েন পুলিশ সদস্য জাহাঙ্গীর। রাতেই নি’হত জাহাঙ্গীরের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ম’র্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন অতিরিক্ত পুশিল সুপার (বানিয়াচং সার্কেল) পলাশ রঞ্জন দে ও বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ অজয় চন্দ্র দেব। পরে আটক পলক দাসকে বানিয়াচং থানায় নিয়ে আসেন। পলক দাস ওই ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের শাখাইতি গ্রামের ক্ষীর মোহন দাসের পুত্র।

বানিয়াচং উপজেলার ৫নং দৌলতপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মঞ্জু কুমার দাস জানান, ঘটনার কয়েকদিন পূর্বে পলক দাসকে গাঁজা সেবন করতে দেখলে, তিনি তাকে গাঁজা সেবন না করার উপদেশ দিয়ে শাসন করেন। এ শাসনের ক্ষোভ থেকেই পলক দাস কনস্টেবল জাহাঙ্গীর আলমকে হ’ত্যা করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তিনি আরো জানান,গত ৭/৮মাস পূর্বে টাঙ্গাইল থেকে প্রেষণে নৌ পুলিশ ফাঁড়িতে যোগদান করেন নিহত জাহাঙ্গীর।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বানিয়াচং সার্কেল) পলাশ রঞ্জন দে গণমাধ্যমকে জানান, কি কারণে জাহাঙ্গীরকে হ’ত্যা করা হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট করে কোনো কিছু বলা যাচ্ছেনা। এ নিয়ে তদন্ত চলছে।

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনী এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ /প্রতিদিনের পোস্ট

এই নিউজটি শেয়ার করুন

বানিয়াচং মাদকের হাতে নৌ পুলিশ সদস্য নি’হত

প্রকাশের সময় : ০৩:৪০:৩০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার ৫নং দৌলতপুর ইউনিয়নের মার্কুলি বাজারে এক মাদকসেবীর হাতে জাহাঙ্গীর নামে নৌ পুলিশ ফাঁড়ির সদস্য নি’হত হয়েছেন। নি’হত জাহাঙ্গীরের বাড়ি কিশোরগঞ্জে। সে গত সোমবার(৩০জানুয়ারি) রাত ৮টার দিকে মার্কুলি বাজারের দুলাল ভ্যারাইটিজ স্টোরে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায় ,উল্লিখিত সময়ে কনস্টেবল শাওন ও জাহাঙ্গীর দোকানে বসা ছিলেন। এসময় হুট করে ভবঘুরে মাদকসেবী পলক দাস এসে জাহাঙ্গীরের মাথার ডান দিকে স্টিলের টেইপ দিয়ে সজোরে আঘাত করে। এক পর্যায়ে দোকানের বাহিরে গিয়ে অপর পুলিশ সদস্য পলক দাসকে ধরে ফেলেন।

এমতাবস্থায় দস্তাদস্তির একফাঁকে পুলিশ সদস্য জাহাঙ্গীর মাটি পড়ে যান। পরে আস পাশের লোকজন এসে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য স্থানীয় একটি ফার্মেসীতে নিয়ে যান। সেখানে তার অবস্থার বেগতিক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাত সাড়ে ৯টার দিকে অ্যাম্বুলেন্স যোগে সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে পাঠালে সেখানে মৃ’ত্যুর কোলে ঢলে পড়েন পুলিশ সদস্য জাহাঙ্গীর। রাতেই নি’হত জাহাঙ্গীরের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ম’র্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন অতিরিক্ত পুশিল সুপার (বানিয়াচং সার্কেল) পলাশ রঞ্জন দে ও বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ অজয় চন্দ্র দেব। পরে আটক পলক দাসকে বানিয়াচং থানায় নিয়ে আসেন। পলক দাস ওই ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের শাখাইতি গ্রামের ক্ষীর মোহন দাসের পুত্র।

বানিয়াচং উপজেলার ৫নং দৌলতপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মঞ্জু কুমার দাস জানান, ঘটনার কয়েকদিন পূর্বে পলক দাসকে গাঁজা সেবন করতে দেখলে, তিনি তাকে গাঁজা সেবন না করার উপদেশ দিয়ে শাসন করেন। এ শাসনের ক্ষোভ থেকেই পলক দাস কনস্টেবল জাহাঙ্গীর আলমকে হ’ত্যা করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তিনি আরো জানান,গত ৭/৮মাস পূর্বে টাঙ্গাইল থেকে প্রেষণে নৌ পুলিশ ফাঁড়িতে যোগদান করেন নিহত জাহাঙ্গীর।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বানিয়াচং সার্কেল) পলাশ রঞ্জন দে গণমাধ্যমকে জানান, কি কারণে জাহাঙ্গীরকে হ’ত্যা করা হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট করে কোনো কিছু বলা যাচ্ছেনা। এ নিয়ে তদন্ত চলছে।

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনী এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ /প্রতিদিনের পোস্ট