ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
বাংলাদেশ উদাচী শিল্পীগোষ্ঠী বেলাব থানা শাখার আয়োজনে বাংলা নববর্ষ পালিত ওয়েবসাইট তৈরিতে ৫০ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে খন্দকার আইটি বেড়াতে এসে প্রবাসে ফেরা হলো না ফাহমিদার পর্যটন নগরী শ্রীমঙ্গলে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত বাসকপ নবীনগর শাখার উদ্যোগে আলোচনাসভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত মনোহরদীতে মৃত ব্যক্তিদের মাগফেরাত কামনায় দোয়া ও ইফতার মাহফিল ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রয়াত সাংবাদিকদের স্বরণে আলোচনা সভা, ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হাল্টপ্রাইজ বোস্টন সামিটে যাবে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় বেলাবতে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রহিমা বেগম মুয়ুরী আলফাডাঙ্গায় রমজান মাস উপলক্ষে সুলভমূল্যে ডিম,দুধ ও মাংস বিক্রি: মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী

বিদ্যুৎবিহীন ১৭৫ টি পরিবার কুপি ভড়সা

প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : ১০:২১:২৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ ২০২৩
  • / ৫৬ বার পড়া হয়েছে
তিমির বনিক, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলাকে শতভাগ বিদ্যুতায়ন ঘোষণা করা হলেও বিদ্যুৎ থেকে বঞ্চিত দেওড়াছড়া চা বাগানের ১৭৫ টি পরিবার। দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যুৎবিহীন থাকা পরিবারগুলোর পক্ষ থেকে গত রোববার দুপুরে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বরাবারে একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। জানা যায়, কমলগঞ্জ উপজেলার রহিমপুর ইউনিয়নের দেওড়াছড়া চা বাগানের ৬ ও ৭নং লাইন, শালবাড়ি ও চন্ডিপুর এলাকায় ২০১৯ সালে বিদ্যুতায়িতের লক্ষ্যে বিদ্যুতের খুঁটি ও লাইন টানা হলেও ১৭৫ টি পরিবারগুলো দীর্ঘ সময় থেকে বিদ্যুৎ বঞ্চিত রয়েছে।এদিকে, দেওড়াছড়া চা বাগানের বিদ্যুৎ বঞ্চিত ভোক্তভোগী মিঠুন উড়াং, রাজু উড়াং, সুমন রায়, আপন উড়াংসহ অনেকে জানান, কয়েক বছর আগে বিদ্যুতের জন্য আমাদের এলাকায় বিদ্যুতের খুঁটি ও লাইন টানা হলেও কি অদৃশ্য কারণে আমাদের সংযোগ থেকে বঞ্চিত রাখা হয়েছে জানিনা। আমরা ডিজিটাল যুগে এসেও অন্ধকারে রয়েছি। আমাদের আশপাশের পাহাড়ি এলাকার সব জায়গায় বিদ্যুতায়িত করা হলেও কেবল আমরাই অন্ধকারে পড়ে আছি। তারা আরো জানায়, বিদ্যুতের অভাবে আমাদের অনেক সমস্যা পোহাতে হচ্ছে। বিশেষ করে স্কুল, কলেজ পড়ুয়া ছেলেমেয়েরা ঠিকভাবে লেখাপড়া চালাতে পারছেনা। পোহাতে হচ্ছে চরম ভোগান্তি।
শিক্ষার্থী রাজু বলেন, আমরা রাতে পড়াশোনা করতে পারছিনা। এযুগে এসে কুপি জ্বালিয়ে লেখাপড়া চালাতে হবে তা ভাবতেই কষ্ট লাগছে। শুনেছি কমলগঞ্জ উপজেলাকে সরকারীভাবে শতভাগ বিদ্যুতায়ন উপজেলা হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে এটা কিভাবে সম্ভব?
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কমলগঞ্জ জোনাল অফিসের ডিজিএম গোলাম ফারুক মীর বলেন, বাড়িগুলোতে ওয়্যারিং এর কাজ অসম্পূর্ণ থাকায় সংযোগ দেয়া যাচ্ছেনা। ওয়্যারিং সম্পূর্ণ করে বাগান কর্তৃপক্ষ কাগজপত্র জমা করলেই আমরা দ্রুত বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করে দিতে পারব বলে জানান তিনি।
ট্যাগস :

এই নিউজটি শেয়ার করুন

x

বিদ্যুৎবিহীন ১৭৫ টি পরিবার কুপি ভড়সা

প্রকাশের সময় : ১০:২১:২৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ ২০২৩
তিমির বনিক, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলাকে শতভাগ বিদ্যুতায়ন ঘোষণা করা হলেও বিদ্যুৎ থেকে বঞ্চিত দেওড়াছড়া চা বাগানের ১৭৫ টি পরিবার। দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যুৎবিহীন থাকা পরিবারগুলোর পক্ষ থেকে গত রোববার দুপুরে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বরাবারে একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। জানা যায়, কমলগঞ্জ উপজেলার রহিমপুর ইউনিয়নের দেওড়াছড়া চা বাগানের ৬ ও ৭নং লাইন, শালবাড়ি ও চন্ডিপুর এলাকায় ২০১৯ সালে বিদ্যুতায়িতের লক্ষ্যে বিদ্যুতের খুঁটি ও লাইন টানা হলেও ১৭৫ টি পরিবারগুলো দীর্ঘ সময় থেকে বিদ্যুৎ বঞ্চিত রয়েছে।এদিকে, দেওড়াছড়া চা বাগানের বিদ্যুৎ বঞ্চিত ভোক্তভোগী মিঠুন উড়াং, রাজু উড়াং, সুমন রায়, আপন উড়াংসহ অনেকে জানান, কয়েক বছর আগে বিদ্যুতের জন্য আমাদের এলাকায় বিদ্যুতের খুঁটি ও লাইন টানা হলেও কি অদৃশ্য কারণে আমাদের সংযোগ থেকে বঞ্চিত রাখা হয়েছে জানিনা। আমরা ডিজিটাল যুগে এসেও অন্ধকারে রয়েছি। আমাদের আশপাশের পাহাড়ি এলাকার সব জায়গায় বিদ্যুতায়িত করা হলেও কেবল আমরাই অন্ধকারে পড়ে আছি। তারা আরো জানায়, বিদ্যুতের অভাবে আমাদের অনেক সমস্যা পোহাতে হচ্ছে। বিশেষ করে স্কুল, কলেজ পড়ুয়া ছেলেমেয়েরা ঠিকভাবে লেখাপড়া চালাতে পারছেনা। পোহাতে হচ্ছে চরম ভোগান্তি।
শিক্ষার্থী রাজু বলেন, আমরা রাতে পড়াশোনা করতে পারছিনা। এযুগে এসে কুপি জ্বালিয়ে লেখাপড়া চালাতে হবে তা ভাবতেই কষ্ট লাগছে। শুনেছি কমলগঞ্জ উপজেলাকে সরকারীভাবে শতভাগ বিদ্যুতায়ন উপজেলা হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে এটা কিভাবে সম্ভব?
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কমলগঞ্জ জোনাল অফিসের ডিজিএম গোলাম ফারুক মীর বলেন, বাড়িগুলোতে ওয়্যারিং এর কাজ অসম্পূর্ণ থাকায় সংযোগ দেয়া যাচ্ছেনা। ওয়্যারিং সম্পূর্ণ করে বাগান কর্তৃপক্ষ কাগজপত্র জমা করলেই আমরা দ্রুত বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করে দিতে পারব বলে জানান তিনি।