ঢাকা , শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মাদক মামলায় যাবজ্জীবন কারাদন্ড।

  • প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : ০৯:২২:৩৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • ৬৮ বার পড়া হয়েছে

তিমির বনিক,

সিলেটে মাদক দ্রব্য মামলায় এক আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। একই মামলায় আরও ২ আসামির বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সিলেট দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. শাহাদাৎ হোসেন প্রামাণিক এ রায় ঘোষণা করেন।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত মো. তরিকুল ইসলাম ওরফে রাজিব বগুড়া জেলার ধুনট বরিয়া গ্রামের মৃত তাজুল ইসলামের ছেলে ও গাজীপুরের সমরাস্ত্র কারখানার ই-৫/১০ বাড়ির বাসিন্দা।

এছাড়া মামলার অপর আসামি ঝিনাইদহ জেলার শৈলাকুপা থানাধীন ব্রাহীমপুরের মো. জাফর আলতাফের ছেলে বিএম আসিফ আফরোজ মৌসুমকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

অপর আসামি জামালপুর জেলার ইসলামপুর থানাধীন মারাহান্দি নাপিতের চর শাহপাড়ার মুনা বেপারীর ছেলে মো. মনির হোসেনকে ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

মামলার বরাত দিয়ে আদালতের সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালের ২৬ ডিসেম্বর সিলেটের গোলাপগঞ্জ পৌরসভার গেটের পাশে প্রাইভেটকার থেকে পালানোর চেষ্টাকালে ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত ৩ আসামিকে আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে ৪০ লাখ ৭ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যের ৮ হাজার ১৫ ইয়াবা উদ্ধার করে র‌্যাব। এ ঘটনায় র‌্যাব-৯’র উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু বকর সিদ্দিক বাদী হয়ে মাদক আইনে মামলা করেন।

২০২০ সালে গোলাপগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মামুনুর রশিদ আদালতে এ মামলার অভিযোগপত্র (নং-১১) দাখিল করেন। মামলাটি বিচারের জন্য ওই আদালতে স্থানান্তর হলে বিচারকাজ শুরু হয়। এরপর ২০২০ সালের ১৫ অক্টোবর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচারকাজ শুরু হয়। দীর্ঘ শুনানিতে ২০ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালতের বিচারক এ মামলার রায় ঘোষণা করেন।

 

Facebook Comments Box
ট্যাগস :
জনপ্রিয়

মাদক মামলায় যাবজ্জীবন কারাদন্ড।

প্রকাশের সময় : ০৯:২২:৩৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

তিমির বনিক,

সিলেটে মাদক দ্রব্য মামলায় এক আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। একই মামলায় আরও ২ আসামির বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সিলেট দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. শাহাদাৎ হোসেন প্রামাণিক এ রায় ঘোষণা করেন।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত মো. তরিকুল ইসলাম ওরফে রাজিব বগুড়া জেলার ধুনট বরিয়া গ্রামের মৃত তাজুল ইসলামের ছেলে ও গাজীপুরের সমরাস্ত্র কারখানার ই-৫/১০ বাড়ির বাসিন্দা।

এছাড়া মামলার অপর আসামি ঝিনাইদহ জেলার শৈলাকুপা থানাধীন ব্রাহীমপুরের মো. জাফর আলতাফের ছেলে বিএম আসিফ আফরোজ মৌসুমকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

অপর আসামি জামালপুর জেলার ইসলামপুর থানাধীন মারাহান্দি নাপিতের চর শাহপাড়ার মুনা বেপারীর ছেলে মো. মনির হোসেনকে ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

মামলার বরাত দিয়ে আদালতের সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালের ২৬ ডিসেম্বর সিলেটের গোলাপগঞ্জ পৌরসভার গেটের পাশে প্রাইভেটকার থেকে পালানোর চেষ্টাকালে ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত ৩ আসামিকে আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে ৪০ লাখ ৭ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যের ৮ হাজার ১৫ ইয়াবা উদ্ধার করে র‌্যাব। এ ঘটনায় র‌্যাব-৯’র উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু বকর সিদ্দিক বাদী হয়ে মাদক আইনে মামলা করেন।

২০২০ সালে গোলাপগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মামুনুর রশিদ আদালতে এ মামলার অভিযোগপত্র (নং-১১) দাখিল করেন। মামলাটি বিচারের জন্য ওই আদালতে স্থানান্তর হলে বিচারকাজ শুরু হয়। এরপর ২০২০ সালের ১৫ অক্টোবর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচারকাজ শুরু হয়। দীর্ঘ শুনানিতে ২০ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালতের বিচারক এ মামলার রায় ঘোষণা করেন।

 

Facebook Comments Box