ঢাকা , সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

যারা সংবিধান মানে না, তারা বাংলাদেশের নাগরিক না, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘যারা সংবিধান মানে না, তারা বাংলাদেশের নাগরিক না। নাগরিকত্ব পরিচয় দেওয়াটা তাদের জন্য সঠিক নয়। আজ শুক্রবার নিজ সংসদীয় এলাকা আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। সাংবাদিকেরা তাঁকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলের সরকারপতনের এক দফা দাবির বিষয়ে প্রশ্ন করেছিলেন। আনিসুল হক বলেন ‘বিএনপির নেতারা অনেক কথাই বলতে পারে। তবে তারা যা-ই বলুক আমরা কিন্তু বাংলাদেশের সংবিধান মেনে চলেছি। এর কারণ ১৯৭১ সালে ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে এই দেশ স্বাধীনতা পেয়েছে এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের এ সংবিধান উপহার দিয়েছেন। আইনমন্ত্রী আরও বলেন ‘জননেত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০৪১ সালের মধ্যে এ দেশকে স্মার্ট বাংলাদেশ হিসেবে গড়ে তোলা হবে। আমরা তাঁর সেই নির্দেশনা মেনে ২০৪১ সালের মধ্যেই স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ করব।’

এ সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক মো. শাহগীর আলম, পুলিশ সুপার সাখাওয়াত হোসেন, আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী চৌধুরী, কসবা উপজেলা চেয়ারম্যান রাশেদুল কাওসার ভূঁইয়া জীবন, সাধারণ সম্পাদক তাকজিল খলিফা কাজল উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments Box
জনপ্রিয়

যারা সংবিধান মানে না, তারা বাংলাদেশের নাগরিক না, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক

প্রকাশের সময় : ০৮:৩০:০১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুলাই ২০২৩

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘যারা সংবিধান মানে না, তারা বাংলাদেশের নাগরিক না। নাগরিকত্ব পরিচয় দেওয়াটা তাদের জন্য সঠিক নয়। আজ শুক্রবার নিজ সংসদীয় এলাকা আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। সাংবাদিকেরা তাঁকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলের সরকারপতনের এক দফা দাবির বিষয়ে প্রশ্ন করেছিলেন। আনিসুল হক বলেন ‘বিএনপির নেতারা অনেক কথাই বলতে পারে। তবে তারা যা-ই বলুক আমরা কিন্তু বাংলাদেশের সংবিধান মেনে চলেছি। এর কারণ ১৯৭১ সালে ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে এই দেশ স্বাধীনতা পেয়েছে এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের এ সংবিধান উপহার দিয়েছেন। আইনমন্ত্রী আরও বলেন ‘জননেত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০৪১ সালের মধ্যে এ দেশকে স্মার্ট বাংলাদেশ হিসেবে গড়ে তোলা হবে। আমরা তাঁর সেই নির্দেশনা মেনে ২০৪১ সালের মধ্যেই স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ করব।’

এ সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক মো. শাহগীর আলম, পুলিশ সুপার সাখাওয়াত হোসেন, আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী চৌধুরী, কসবা উপজেলা চেয়ারম্যান রাশেদুল কাওসার ভূঁইয়া জীবন, সাধারণ সম্পাদক তাকজিল খলিফা কাজল উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments Box