ঢাকা , শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘যৌ’ন কর্মীরা চাই শ্রমিকের অধিকার, সাথে সামাজিক নিরাপত্তা’

মনোয়ার ইমাম, কলকাতা
  • প্রকাশের সময় : ০৭:৫৯:২৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১ মে ২০২৪
  • / ৭৩ বার পড়া হয়েছে

ছবি প্রতিদিনের পোস্ট

কলকাতায় ভারতের বৃহত্তম যৌ;ন কর্মীদের সোসাইটি দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির পক্ষ থেকে যৌ;ন কর্মীদের শ্রমিকের অধিকার ও তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা,রেশনিং ব্যাবস্থা এবং নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে নিয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হইয়েছে। মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) কলকাতার সোনাগাজীতে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় উপস্থিত ছিলেন ভারতের বৃহত্তম যৌ;ন কর্মীদের সোসাইটি দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির সেক্রেটারি শ্রীমতী বিশাখা লস্কর। তিনি বলেন যে ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে যৌ;ন পেশায় নিয়োজিত মহিলাদের শ্রমিকের অধিকার দিতে হবে। সেই সঙ্গে ২২ বছর উর্ধে যারা নিজেদের ইচ্ছায় যৌ;ন পেশায় নিয়োজিত হয়েছে তাদেরকে কোনভাবে হয়রানি করতে পারবেন না।

কিন্তু বর্তমান সরকার কর্তৃক পুলিশের কিছু অংশ ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কর্মীদের বাধার সম্মুখীন হতে হয় যৌ;ন কর্মীদের। কোথাও প্রশাসনিক হেনস্তা হতে হয়। পদে পদে বিপদের সম্মুখীন হতে হয়। যৌ;নকর্মীদের রেশনিং ব্যাবস্থা ও তাদের নিরপত্তা এবং সামাজিক অধিকার রয়েছে তাদেরকে সম্মান জানানো। যৌ;ন কর্মীদের সাস্থ্য ও ভোটার তালিকায় নাম তোলা এবং তাদের রাষ্ট্রের শ্রমিকের যে অধিকার দেওয়া হয়েছে তা দেওয়ার জন্য আন্দোলন চলছে। সময়ে সময়ে তাদেরকে পুলিশের হাতেও হেনস্তা হতে হয়। এই কাজ যদি চলতে থাকে তাহলে ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশকে অমান্য করছে পুলিশ তা দেখার জন্য অনুরোধ করেন। সারা ভারতের বিভিন্ন যায়গায় দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির সদস্য সংখ্যা চল্লিশ হাজারেরও বেশি। তাদের অধিকার ও সামাজিক ন্যায় এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থা সুনিশ্চিত করার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে চলেছে দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির সেক্রেটারি শ্রীমতী বিশাখা লস্কর।

ট্যাগস :

এই নিউজটি শেয়ার করুন

‘যৌ’ন কর্মীরা চাই শ্রমিকের অধিকার, সাথে সামাজিক নিরাপত্তা’

প্রকাশের সময় : ০৭:৫৯:২৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১ মে ২০২৪

কলকাতায় ভারতের বৃহত্তম যৌ;ন কর্মীদের সোসাইটি দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির পক্ষ থেকে যৌ;ন কর্মীদের শ্রমিকের অধিকার ও তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা,রেশনিং ব্যাবস্থা এবং নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে নিয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হইয়েছে। মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) কলকাতার সোনাগাজীতে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় উপস্থিত ছিলেন ভারতের বৃহত্তম যৌ;ন কর্মীদের সোসাইটি দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির সেক্রেটারি শ্রীমতী বিশাখা লস্কর। তিনি বলেন যে ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে যৌ;ন পেশায় নিয়োজিত মহিলাদের শ্রমিকের অধিকার দিতে হবে। সেই সঙ্গে ২২ বছর উর্ধে যারা নিজেদের ইচ্ছায় যৌ;ন পেশায় নিয়োজিত হয়েছে তাদেরকে কোনভাবে হয়রানি করতে পারবেন না।

কিন্তু বর্তমান সরকার কর্তৃক পুলিশের কিছু অংশ ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কর্মীদের বাধার সম্মুখীন হতে হয় যৌ;ন কর্মীদের। কোথাও প্রশাসনিক হেনস্তা হতে হয়। পদে পদে বিপদের সম্মুখীন হতে হয়। যৌ;নকর্মীদের রেশনিং ব্যাবস্থা ও তাদের নিরপত্তা এবং সামাজিক অধিকার রয়েছে তাদেরকে সম্মান জানানো। যৌ;ন কর্মীদের সাস্থ্য ও ভোটার তালিকায় নাম তোলা এবং তাদের রাষ্ট্রের শ্রমিকের যে অধিকার দেওয়া হয়েছে তা দেওয়ার জন্য আন্দোলন চলছে। সময়ে সময়ে তাদেরকে পুলিশের হাতেও হেনস্তা হতে হয়। এই কাজ যদি চলতে থাকে তাহলে ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশকে অমান্য করছে পুলিশ তা দেখার জন্য অনুরোধ করেন। সারা ভারতের বিভিন্ন যায়গায় দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির সদস্য সংখ্যা চল্লিশ হাজারেরও বেশি। তাদের অধিকার ও সামাজিক ন্যায় এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থা সুনিশ্চিত করার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে চলেছে দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির সেক্রেটারি শ্রীমতী বিশাখা লস্কর।