ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

“রেললাইনে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার, হাসপাতালে তরুণীর মৃ’ত্যু”

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি, প্রতিদিনের পোস্ট.কম
  • প্রকাশের সময় : ০৭:৫৪:১৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • / ১০৫ বার পড়া হয়েছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কলেজছাত্রী সাদিয়া সুলতানা তৃষার (১৮) রহস্যজনক মৃ’ত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০২ ফেব্রুয়ারি) বেলা আড়াইটার দিকে জেলা শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মৃ’ত্যুবরণ করে।

তৃষা জেলা শহরের ফুলবাড়িয়া এলাকার আবু সাইমের মেয়ে এবং পৌর ডিগ্রি কলেজ থেকে এবছর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছিলো।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি) মো. এমরানুল ইসলাম জানান, সকাল সাড়ে আটটার দিকে প্রাইভেটের কথা বলে তৃষা বাসা থেকে বের হয়ে যায়। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে শহরের শিমরাইলকান্দি ও কলেজপাড়ার মাঝামাঝি রেললাইনে তাকে অচেতন অবস্থায় পেয়ে পথচারীরা জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে নিয়ে যায়৷ সেখানে কিছুটা জ্ঞান ফিরলে তাকে চিকিৎসকরা ভর্তি দেন।

এর কিছুক্ষণ পরই শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্যে তাকে শহরের আইসিইউ স্পেশালাইজড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।

তবে তার শরীরে কোনো আঘাত নেই। ওই তরুণী হাসপাতালে কিছু সময়ের জন্যে জ্ঞান আসলে উদ্ধারকারীদের জানিয়েছিল-সে বিষ জাতীয় ঔষধ সেবন করেছিলো। কিন্তু ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসার আগে এখনই কি কারণে তার মৃ’ত্যু হয়েছে, এনিয়ে কিছু মন্তব্য করতে পারছিনা।’

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনী এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ /প্রতিদিনের পোস্ট

ট্যাগস :

এই নিউজটি শেয়ার করুন

“রেললাইনে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার, হাসপাতালে তরুণীর মৃ’ত্যু”

প্রকাশের সময় : ০৭:৫৪:১৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কলেজছাত্রী সাদিয়া সুলতানা তৃষার (১৮) রহস্যজনক মৃ’ত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০২ ফেব্রুয়ারি) বেলা আড়াইটার দিকে জেলা শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মৃ’ত্যুবরণ করে।

তৃষা জেলা শহরের ফুলবাড়িয়া এলাকার আবু সাইমের মেয়ে এবং পৌর ডিগ্রি কলেজ থেকে এবছর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছিলো।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি) মো. এমরানুল ইসলাম জানান, সকাল সাড়ে আটটার দিকে প্রাইভেটের কথা বলে তৃষা বাসা থেকে বের হয়ে যায়। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে শহরের শিমরাইলকান্দি ও কলেজপাড়ার মাঝামাঝি রেললাইনে তাকে অচেতন অবস্থায় পেয়ে পথচারীরা জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে নিয়ে যায়৷ সেখানে কিছুটা জ্ঞান ফিরলে তাকে চিকিৎসকরা ভর্তি দেন।

এর কিছুক্ষণ পরই শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্যে তাকে শহরের আইসিইউ স্পেশালাইজড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।

তবে তার শরীরে কোনো আঘাত নেই। ওই তরুণী হাসপাতালে কিছু সময়ের জন্যে জ্ঞান আসলে উদ্ধারকারীদের জানিয়েছিল-সে বিষ জাতীয় ঔষধ সেবন করেছিলো। কিন্তু ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসার আগে এখনই কি কারণে তার মৃ’ত্যু হয়েছে, এনিয়ে কিছু মন্তব্য করতে পারছিনা।’

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনী এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ /প্রতিদিনের পোস্ট