ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
বাংলাদেশ উদাচী শিল্পীগোষ্ঠী বেলাব থানা শাখার আয়োজনে বাংলা নববর্ষ পালিত ওয়েবসাইট তৈরিতে ৫০ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে খন্দকার আইটি বেড়াতে এসে প্রবাসে ফেরা হলো না ফাহমিদার পর্যটন নগরী শ্রীমঙ্গলে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত বাসকপ নবীনগর শাখার উদ্যোগে আলোচনাসভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত মনোহরদীতে মৃত ব্যক্তিদের মাগফেরাত কামনায় দোয়া ও ইফতার মাহফিল ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রয়াত সাংবাদিকদের স্বরণে আলোচনা সভা, ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হাল্টপ্রাইজ বোস্টন সামিটে যাবে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় বেলাবতে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রহিমা বেগম মুয়ুরী আলফাডাঙ্গায় রমজান মাস উপলক্ষে সুলভমূল্যে ডিম,দুধ ও মাংস বিক্রি: মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী

শ্রীমঙ্গলে বানোয়াট ভিত্তিহীন মামলার আশ্রয়ে ভাই ভাতিজাদের হেনস্থার স্বীকার

প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : ১০:৪৮:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ মে ২০২৩
  • / ১৪৯ বার পড়া হয়েছে
তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার ৬নং আশিদ্রোন ইউনিয়নের শংকরসোনা গ্রামে নিজঘরে আগুন দিয়ে পুড়ানোসহ একাধিক বানোয়াট মামলা দিয়ে আপন ভাই-ভাতিজাদের হয়রানী করার উদ্দেশ্যে প্রনোদিত ভাবে হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জামে মসজিদের ইমাম মাওঃ মোঃ আজগর হোসেন (৪৫) এর বিরুদ্ধে। সর্বশেষ তিনি বাদী হয়ে নিজঘরে আগুন দেয়ার অভিযোগ তুলে আপন বড় ভাই মোঃ মোছাহির হোসেন ওরফে মস্তরী (৬৫), মোঃ আকবর আলী (৬২), ভাতিজা শরীফ মিয়া (২৭) ও আনোয়ার হোসেন (৩০)কে আসামী করে মৌলভীবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেছেন। বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) তদন্ত করছে। বিজ্ঞ আদালতে দায়েরকৃত ২টি মামলার অপরাধে জরিত না থাকায় অভিযুক্তদের ভোগান্তি কিছুটা হলেও  ভুক্তভোগীদের খালাস দিয়েছেন মহামান্য আদালত। এবং বর্তমানে আদালতে দায়েরকৃত মামলার সত্যতা কি এ সব বিষয়ে সরেজমিন গিয়ে তাকে না পেয়ে মাওঃ আজগর হোসেনের মুঠোফোনে জানতে চাইলে এ প্রতিবেদককে জানান- আমার কাছে প্রমান আছে। এখন এসব বিষয়ে বলতে পারবো না। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে প্রতিবেশী মোঃ তাজুল ইসলাম, মোঃ জামাল মিয়া, ফুল মিয়া, অপর ধর্মালম্বী প্রতিবেশী সুমিত্রা, সন্ধ্যা, জাদুসহ একাধিক প্রতিবেশী জানান- মাওঃ আজগর হোসেন এর ঘরে আগুন লাগলে আমরা প্রতিবেশী হিসাবে দেখা- জানা এবং শুনার কথা। আগুন না লাগলে আমরা শুনবো বা জানবো কোথা থেকে! এসব মিথ্যা। মাওঃ মোঃ আজগর হোসেন এর সাথে মূল বিরোধ স্থানীয় একটি মাদ্রাসার আর্থিক লেদ-দেন এর অনিয়ম ও দুর্ণীতি নিয়ে। তাদের মধ্যে পারিবারিক বিরোধ ও চলমান। ভুক্তভোগী মোঃ মোছাহির হোসেন, মোঃ আকবর আলী, আনোয়ার হোসেন গংরা জানান- শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জামে মসজিদের ইমাম মোঃ আজগর হোসেন প্রতিশোধ পরায়ন হয়ে একাধিক মিথ্যা মামলা দায়ের করে আসছেন। দায়েরকৃত অভিযোগ মিথ্যা প্রমানিত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত (পিটিশন মামলা নং- ১৮৪/২০২২ইং (শ্রীঃ) ও নন জিআর-৫৩/২০২২ইং (শ্রীমঙ্গল) হইতে খালাস প্রদান করেন। ৯নং ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ জয়নাল আবেদীন বলেন- ঘরে আগুন লাগানোর বিষয়টি জানা নেই। তাছাড়া, মাওঃ মোঃ আজগর হোসেন এলাকার মেম্বার, চেয়ারম্যান ও গন্যমান্য লোকজনদের অবহেলা করে চলেন। বিজ্ঞ আদালতে দায়েরকৃত ২টি দায়েরকৃত মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এ ব্যপারে জানতে চাইলে ৬নং আশিদ্রোন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রনেন্দ্র প্রসাদ বর্ধন (জহর) বলেন- পারিবারিক বিরোধীতা চলমান। মাওঃ মোঃ আজগর হোসেন উপজেলা চেয়ারম্যানসহ গন্যমান্য ব্যক্তিদের কতাবার্তা শুনতে রাজি নয়। তিনি কথায় কথায় একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি‘র নাম ব্যবহার করছেন। ব্যবহার করা ব্যক্তি কি আদৌও জানেন মাওঃ আজগর হোসেনের কর্মকান্ড!
ট্যাগস :

এই নিউজটি শেয়ার করুন

x

শ্রীমঙ্গলে বানোয়াট ভিত্তিহীন মামলার আশ্রয়ে ভাই ভাতিজাদের হেনস্থার স্বীকার

প্রকাশের সময় : ১০:৪৮:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ মে ২০২৩
তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার ৬নং আশিদ্রোন ইউনিয়নের শংকরসোনা গ্রামে নিজঘরে আগুন দিয়ে পুড়ানোসহ একাধিক বানোয়াট মামলা দিয়ে আপন ভাই-ভাতিজাদের হয়রানী করার উদ্দেশ্যে প্রনোদিত ভাবে হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জামে মসজিদের ইমাম মাওঃ মোঃ আজগর হোসেন (৪৫) এর বিরুদ্ধে। সর্বশেষ তিনি বাদী হয়ে নিজঘরে আগুন দেয়ার অভিযোগ তুলে আপন বড় ভাই মোঃ মোছাহির হোসেন ওরফে মস্তরী (৬৫), মোঃ আকবর আলী (৬২), ভাতিজা শরীফ মিয়া (২৭) ও আনোয়ার হোসেন (৩০)কে আসামী করে মৌলভীবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেছেন। বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) তদন্ত করছে। বিজ্ঞ আদালতে দায়েরকৃত ২টি মামলার অপরাধে জরিত না থাকায় অভিযুক্তদের ভোগান্তি কিছুটা হলেও  ভুক্তভোগীদের খালাস দিয়েছেন মহামান্য আদালত। এবং বর্তমানে আদালতে দায়েরকৃত মামলার সত্যতা কি এ সব বিষয়ে সরেজমিন গিয়ে তাকে না পেয়ে মাওঃ আজগর হোসেনের মুঠোফোনে জানতে চাইলে এ প্রতিবেদককে জানান- আমার কাছে প্রমান আছে। এখন এসব বিষয়ে বলতে পারবো না। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে প্রতিবেশী মোঃ তাজুল ইসলাম, মোঃ জামাল মিয়া, ফুল মিয়া, অপর ধর্মালম্বী প্রতিবেশী সুমিত্রা, সন্ধ্যা, জাদুসহ একাধিক প্রতিবেশী জানান- মাওঃ আজগর হোসেন এর ঘরে আগুন লাগলে আমরা প্রতিবেশী হিসাবে দেখা- জানা এবং শুনার কথা। আগুন না লাগলে আমরা শুনবো বা জানবো কোথা থেকে! এসব মিথ্যা। মাওঃ মোঃ আজগর হোসেন এর সাথে মূল বিরোধ স্থানীয় একটি মাদ্রাসার আর্থিক লেদ-দেন এর অনিয়ম ও দুর্ণীতি নিয়ে। তাদের মধ্যে পারিবারিক বিরোধ ও চলমান। ভুক্তভোগী মোঃ মোছাহির হোসেন, মোঃ আকবর আলী, আনোয়ার হোসেন গংরা জানান- শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জামে মসজিদের ইমাম মোঃ আজগর হোসেন প্রতিশোধ পরায়ন হয়ে একাধিক মিথ্যা মামলা দায়ের করে আসছেন। দায়েরকৃত অভিযোগ মিথ্যা প্রমানিত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত (পিটিশন মামলা নং- ১৮৪/২০২২ইং (শ্রীঃ) ও নন জিআর-৫৩/২০২২ইং (শ্রীমঙ্গল) হইতে খালাস প্রদান করেন। ৯নং ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ জয়নাল আবেদীন বলেন- ঘরে আগুন লাগানোর বিষয়টি জানা নেই। তাছাড়া, মাওঃ মোঃ আজগর হোসেন এলাকার মেম্বার, চেয়ারম্যান ও গন্যমান্য লোকজনদের অবহেলা করে চলেন। বিজ্ঞ আদালতে দায়েরকৃত ২টি দায়েরকৃত মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এ ব্যপারে জানতে চাইলে ৬নং আশিদ্রোন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রনেন্দ্র প্রসাদ বর্ধন (জহর) বলেন- পারিবারিক বিরোধীতা চলমান। মাওঃ মোঃ আজগর হোসেন উপজেলা চেয়ারম্যানসহ গন্যমান্য ব্যক্তিদের কতাবার্তা শুনতে রাজি নয়। তিনি কথায় কথায় একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি‘র নাম ব্যবহার করছেন। ব্যবহার করা ব্যক্তি কি আদৌও জানেন মাওঃ আজগর হোসেনের কর্মকান্ড!