ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সরাইলে রাস্তা কেটে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ

প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : ০৪:৩৪:৩২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ জুন ২০২৩
  • / ১৩৩ বার পড়া হয়েছে

এহসানুল হক রিপন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা’র চুন্টা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের রসুলপুর পূর্বপাড়ায় একটি রাস্তা নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সরাইল অরুয়াইল সড়কের চুন্টা ইউনিয়নের রসুলপুর পূর্বপাড়ায় একটি রাস্তা নির্মাণের কাজ চলছে। ভেকুর সাহায্যে রাস্তা লাগুয়া খাল থেকে কর্দমাক্ত মাটি কেটে ফেলা হচ্ছে। আর যেভাবে কর্দমাক্ত মাটি কেটে ফেলা হচ্ছে তাতে মনে হয়েছে উপকারের চেয়ে অপকারই হবে বেশি। কারণ মূল রাস্তার অংশ কেটে পুনরায় মেরামত করা হচ্ছে কর্দমাক্ত মাটি দিয়ে।
স্থানীয়রা অনেকেই বলছিলেন, যেভাবে কর্দমাক্ত মাটি ফেলা হচ্ছে এই রাস্তা টিকবে না। তারা অনেকেই বলেন এখন যেভাবে মাটি কেটে ফেলা হচ্ছে হাটাচলা করতেই সমস্যা হবে। তারা এই কাজ দেখে হতাশ।

মো: লিটন মিয়া নামে এক জন বলেন, দেখা যাবে যেভাবে কর্দমাক্ত মাটি কেটে ফেলা হইতেছে কোন গর্ভবতী মহিলা নিয়ে বের হওয়াই মুশকিল হবে।
আব্দুল হক(৫০) নামে এক জন বলেন, নিম্নমানের কাজ দেখে আমরা সকলে মিলে ভেকু দিয়ে মাটি কাটার কাজ বন্ধ রাখতে বলছি।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে চুন্টা ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির বলেন, রাস্তার কাজের সময় কিছু অংশ ভুল করে কেটে ফেলা হয়েছে। আর এলাকার জনগণ না চাইলে আমি ভেকু সরিয়ে নিয়ে আসতে বলবো। আমি বরাদ্দের জন্য এমপি উকিল আব্দুস সাত্তার ভূইয়া ও মহিলা এমপির কাছেও বরাদ্দ চেয়েছি। এখন ইউনিয়ন পরিষদের বরাদ্দ থেকে কাজ শুরু করে দিয়েছিলাম।

এই নিউজটি শেয়ার করুন

সরাইলে রাস্তা কেটে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ

প্রকাশের সময় : ০৪:৩৪:৩২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ জুন ২০২৩

এহসানুল হক রিপন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা’র চুন্টা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের রসুলপুর পূর্বপাড়ায় একটি রাস্তা নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সরাইল অরুয়াইল সড়কের চুন্টা ইউনিয়নের রসুলপুর পূর্বপাড়ায় একটি রাস্তা নির্মাণের কাজ চলছে। ভেকুর সাহায্যে রাস্তা লাগুয়া খাল থেকে কর্দমাক্ত মাটি কেটে ফেলা হচ্ছে। আর যেভাবে কর্দমাক্ত মাটি কেটে ফেলা হচ্ছে তাতে মনে হয়েছে উপকারের চেয়ে অপকারই হবে বেশি। কারণ মূল রাস্তার অংশ কেটে পুনরায় মেরামত করা হচ্ছে কর্দমাক্ত মাটি দিয়ে।
স্থানীয়রা অনেকেই বলছিলেন, যেভাবে কর্দমাক্ত মাটি ফেলা হচ্ছে এই রাস্তা টিকবে না। তারা অনেকেই বলেন এখন যেভাবে মাটি কেটে ফেলা হচ্ছে হাটাচলা করতেই সমস্যা হবে। তারা এই কাজ দেখে হতাশ।

মো: লিটন মিয়া নামে এক জন বলেন, দেখা যাবে যেভাবে কর্দমাক্ত মাটি কেটে ফেলা হইতেছে কোন গর্ভবতী মহিলা নিয়ে বের হওয়াই মুশকিল হবে।
আব্দুল হক(৫০) নামে এক জন বলেন, নিম্নমানের কাজ দেখে আমরা সকলে মিলে ভেকু দিয়ে মাটি কাটার কাজ বন্ধ রাখতে বলছি।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে চুন্টা ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির বলেন, রাস্তার কাজের সময় কিছু অংশ ভুল করে কেটে ফেলা হয়েছে। আর এলাকার জনগণ না চাইলে আমি ভেকু সরিয়ে নিয়ে আসতে বলবো। আমি বরাদ্দের জন্য এমপি উকিল আব্দুস সাত্তার ভূইয়া ও মহিলা এমপির কাছেও বরাদ্দ চেয়েছি। এখন ইউনিয়ন পরিষদের বরাদ্দ থেকে কাজ শুরু করে দিয়েছিলাম।