ঢাকা , বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
‘বেরোবিতে পুলিশের গু’ লিতে নি, হত ১, আহত শতাধিক’ মৌলভীবাজারের বিশিষ্ট জনদের আন্তর্জাতিক গনতন্ত্র ও মানবাধিকার সংগঠনে মনোনীত নিজ গ্রাম থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করলেন মেয়র প্রার্থী আওয়ামিলীগ নেতা সফিকুল ইসলাম শ্রীমঙ্গলে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে যুবককে হত্যা নবীনগর থানা প্রেসক্লাবের ত্রি-বার্ষিক কমিটি গঠন সভাপতি জসিম সম্পাদক রুবেল আইনমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে গিয়ে মেয়র ও চেয়ারম্যান গ্রুপের সংঘর্ষ নবীনগরে ইউপি চেয়ারম্যান নুরে আলমের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে সাংবাদিক সম্মেলন মাথিউড়া চা শ্রমিকদের বকেয়া মজুরি পরিশোধের দাবি গাজীপুরে কাভার ভ্যানের ধাক্কায় ধনেপাতার চাষীর মৃত্যু শ্রীমঙ্গলে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের রথযাত্রা উৎসব পালিত

সিমুর প্রচারণায় জমে উঠেছে নির্বাচন, সুশীল সমাজের আস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : ০৯:২২:৪২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪
  • / ৬৭ বার পড়া হয়েছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রূপসদী বৃন্দাবন উচ্চ বিদ্যালয়ে এবার হতে যাচ্ছে এক ঐতিহাসিক অভিনব নির্বাচন। এমন নির্বাচন হয়তো আগে কেউ কখনো দেখেনি। ম্যানেজিং কমিটির এই নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সব পুরুষ সদস্য নির্বাচিত হলেও মহিলা অভিভাবক সদস্য নিয়েই এখন জমে উঠেছে খেলা। অনেকেই ভেবেছিলেন নির্বাচন হয়তো আর হবেই না, কিন্তু সবার আশঙ্কা মিথ্যা প্রমাণ করেছেন মহিলা অভিভাবক প্রার্থী সিমু আক্তার। একমাত্র তার কারণেই এবার ব্যালট পেপার আসতে যাচ্ছে বৃন্দাবনে। শেষ পর্যন্ত এই প্রার্থীর জন্যই আয়োজন করতে হচ্ছে নির্বাচনের সব আয়োজন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সংরক্ষিত মহিলা অভিভাবক সদস্য পদে সিমু আক্তারসহ প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আছে দুজন। একারণে সিলেকশনে যাওয়ার উপায় নেই কারোরই। অবশ্য নির্বাচন হওয়া-না হওয়া নিয়ে দেখা দিয়েছিল জটিলতা। অনেক পক্ষই চাইছিল নির্বাচন যাতে না হয়, এজন্য সিমুকে সরিয়ে দেয়া নিয়েও হয় জল্পনা-কল্পনা। শেষ পর্যন্ত সাহসিকতার সাথে নির্বাচনী মাঠ গরম করে তুলেছেন এই প্রার্থী।

৩০ জুন মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ সময় হলেও সে পর্যন্ত অটল থেকে নির্বাচনের দিকেই ঝুকেছেন এই প্রার্থী।

শেষ পর্যন্ত মাঠে রয়েছেন দুই প্রার্থী, এতেই দিতে হবে নির্বাচন। শুধু মাত্র মহিলা প্রার্থীদের জন্যই এবারের নির্বাচন হবে বলে জানিয়েছেন প্রিসাইডিং কর্মকর্তা। এমন নির্বাচনকে অভিনব নির্বাচনও বলছেন অনেকে।

এদিকে নির্বাচনী প্রচারণার মাঠে সরগরম সিমু আক্তার। ছুটে চলছেন ভোটারদের ঘরে ঘরে। এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রাম গিয়ে করছেন সবার মন জয়। আস্থার প্রতীক হিসেবে দাঁড়িয়েছেন তিনি সবার কাছে। ভোটারদেরও চাওয়া ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন তাকে।

স্থানীয় জনমতেরও বেশির ভাগই সিমুর পক্ষে। রাজনৈতিক আর দীর্ঘ সময় আইন নিয়ে কাজ করায় সর্বোচ্চ যোগ্য প্রার্থী এখন তিনিই।

সুশীল সমাজ বলছে, সিমু তার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার আলোকে শিক্ষার্থীদের কাছাকাছি থাকলে তাদের ভবিষ্যৎ হবে বেশ উজ্জ্বল। অভিভাবকরা যোগ দিচ্ছেন সিমুর নির্বাচনী প্রচারণায়।

বিষয়টি নিয়ে সিমু বলেন, আমার ব্যালট নং-২, আমি মানুষের ভালোবাসা পাচ্ছি, এই ভালোবাসাই আমার শক্তি, এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা, সবাই যে ভাবে উৎসাহ দিচ্ছেন তাতে সত্যিই আমি অভিভূত। অভিভাবকরাও রাত দিন আমার পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছে, সবার মনে জায়গা করে নিতে পেরেছি, এটাই আমার অর্জন।

ট্যাগস :

এই নিউজটি শেয়ার করুন

সিমুর প্রচারণায় জমে উঠেছে নির্বাচন, সুশীল সমাজের আস্থা

প্রকাশের সময় : ০৯:২২:৪২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রূপসদী বৃন্দাবন উচ্চ বিদ্যালয়ে এবার হতে যাচ্ছে এক ঐতিহাসিক অভিনব নির্বাচন। এমন নির্বাচন হয়তো আগে কেউ কখনো দেখেনি। ম্যানেজিং কমিটির এই নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সব পুরুষ সদস্য নির্বাচিত হলেও মহিলা অভিভাবক সদস্য নিয়েই এখন জমে উঠেছে খেলা। অনেকেই ভেবেছিলেন নির্বাচন হয়তো আর হবেই না, কিন্তু সবার আশঙ্কা মিথ্যা প্রমাণ করেছেন মহিলা অভিভাবক প্রার্থী সিমু আক্তার। একমাত্র তার কারণেই এবার ব্যালট পেপার আসতে যাচ্ছে বৃন্দাবনে। শেষ পর্যন্ত এই প্রার্থীর জন্যই আয়োজন করতে হচ্ছে নির্বাচনের সব আয়োজন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সংরক্ষিত মহিলা অভিভাবক সদস্য পদে সিমু আক্তারসহ প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আছে দুজন। একারণে সিলেকশনে যাওয়ার উপায় নেই কারোরই। অবশ্য নির্বাচন হওয়া-না হওয়া নিয়ে দেখা দিয়েছিল জটিলতা। অনেক পক্ষই চাইছিল নির্বাচন যাতে না হয়, এজন্য সিমুকে সরিয়ে দেয়া নিয়েও হয় জল্পনা-কল্পনা। শেষ পর্যন্ত সাহসিকতার সাথে নির্বাচনী মাঠ গরম করে তুলেছেন এই প্রার্থী।

৩০ জুন মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ সময় হলেও সে পর্যন্ত অটল থেকে নির্বাচনের দিকেই ঝুকেছেন এই প্রার্থী।

শেষ পর্যন্ত মাঠে রয়েছেন দুই প্রার্থী, এতেই দিতে হবে নির্বাচন। শুধু মাত্র মহিলা প্রার্থীদের জন্যই এবারের নির্বাচন হবে বলে জানিয়েছেন প্রিসাইডিং কর্মকর্তা। এমন নির্বাচনকে অভিনব নির্বাচনও বলছেন অনেকে।

এদিকে নির্বাচনী প্রচারণার মাঠে সরগরম সিমু আক্তার। ছুটে চলছেন ভোটারদের ঘরে ঘরে। এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রাম গিয়ে করছেন সবার মন জয়। আস্থার প্রতীক হিসেবে দাঁড়িয়েছেন তিনি সবার কাছে। ভোটারদেরও চাওয়া ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন তাকে।

স্থানীয় জনমতেরও বেশির ভাগই সিমুর পক্ষে। রাজনৈতিক আর দীর্ঘ সময় আইন নিয়ে কাজ করায় সর্বোচ্চ যোগ্য প্রার্থী এখন তিনিই।

সুশীল সমাজ বলছে, সিমু তার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার আলোকে শিক্ষার্থীদের কাছাকাছি থাকলে তাদের ভবিষ্যৎ হবে বেশ উজ্জ্বল। অভিভাবকরা যোগ দিচ্ছেন সিমুর নির্বাচনী প্রচারণায়।

বিষয়টি নিয়ে সিমু বলেন, আমার ব্যালট নং-২, আমি মানুষের ভালোবাসা পাচ্ছি, এই ভালোবাসাই আমার শক্তি, এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা, সবাই যে ভাবে উৎসাহ দিচ্ছেন তাতে সত্যিই আমি অভিভূত। অভিভাবকরাও রাত দিন আমার পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছে, সবার মনে জায়গা করে নিতে পেরেছি, এটাই আমার অর্জন।