ঢাকা , শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সুদের চক্রে ফেঁসে বিষপানে জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষিকার আত্মহত্যা

তিমির বনিক
  • প্রকাশের সময় : ০৮:২৮:০৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪
  • / ৭৮ বার পড়া হয়েছে

হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুদখোরদের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। তিনি জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে পুরস্কারপ্রাপ্ত। রিবন রুপা দাশ নামের ওই শিক্ষিকা লাখাই উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের অজয় চন্দ্র দাশের স্ত্রী।

জানা গেছে, হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার ভরপূর্ণি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রিবন রুপা দাশ (৪০) সুদখোরদের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন।

রবিবার (১২ মে) বিকেলে লাখাই উপজেলার গোয়াখাড়া গ্রামের লুকড়া মাদনা সড়কের ঝনঝনিয়া ব্রিজের পাশ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
khandakarit
হবিগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খলিলুর রহমান জানান, ওই শিক্ষিকা এলাকার বেশ কয়েকজন সুদখোরের কাছ থেকে সুদে টাকা নেন। কিন্তু সময়মতো টাকা ফেরত দিতে না পারায় তারা তাকে বিভিন্নভাবে নাজেহাল করতে থাকে। তাদের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে রবিবার বিকেলে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেন রুপা দাশ।

তিনি জানান, স্থানীয় লোকজন লাখাই থানায় খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। তার কাছ থেকে একটি সুইসাইডাল নোট ও কীটনাশকের তিনটি বোতল উদ্ধার করা হয়। একটি বোতলের বিষ পান করেন তিনি।

ট্যাগস :

এই নিউজটি শেয়ার করুন

সুদের চক্রে ফেঁসে বিষপানে জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষিকার আত্মহত্যা

প্রকাশের সময় : ০৮:২৮:০৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪

হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুদখোরদের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। তিনি জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে পুরস্কারপ্রাপ্ত। রিবন রুপা দাশ নামের ওই শিক্ষিকা লাখাই উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের অজয় চন্দ্র দাশের স্ত্রী।

জানা গেছে, হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার ভরপূর্ণি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রিবন রুপা দাশ (৪০) সুদখোরদের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন।

রবিবার (১২ মে) বিকেলে লাখাই উপজেলার গোয়াখাড়া গ্রামের লুকড়া মাদনা সড়কের ঝনঝনিয়া ব্রিজের পাশ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
khandakarit
হবিগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খলিলুর রহমান জানান, ওই শিক্ষিকা এলাকার বেশ কয়েকজন সুদখোরের কাছ থেকে সুদে টাকা নেন। কিন্তু সময়মতো টাকা ফেরত দিতে না পারায় তারা তাকে বিভিন্নভাবে নাজেহাল করতে থাকে। তাদের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে রবিবার বিকেলে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেন রুপা দাশ।

তিনি জানান, স্থানীয় লোকজন লাখাই থানায় খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। তার কাছ থেকে একটি সুইসাইডাল নোট ও কীটনাশকের তিনটি বোতল উদ্ধার করা হয়। একটি বোতলের বিষ পান করেন তিনি।