ঢাকা , শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাওরে বাঁধ নির্মাণ করলে পানি চলাচলে বাধা সৃষ্টি হবে

প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : ০৭:২৩:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ মে ২০২৩
  • / ৮০ বার পড়া হয়েছে

তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, ‘হাওরের জলাভূমিতে, চরে, উপকূলে সাবধানে কাজ করতে হবে। হাওরে বাঁধ নির্মাণ করলে পানি চলাচলে বাধাগ্রস্ত হয়। এতে পানি বাড়ি-ঘরে উঠে যায়।’
আজ বুধবার (২৪ মে) দুপুরে মৌলভীবাজার রেস্ট ইন হোটেলে ‘মৌলভীবাজার জেলার উন্নয়ন ও আমাদের করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘হাওরের পরিবেশ রক্ষার ব্যাপারে প্রশাসন নিয়মিত তদারকি করছে। আমাদেরও সচেতনতার অভাব আছে।’
তিনি বলেন, ‘বৈশ্বিক কারণে সারা দুনিয়ায় টালমাটাল চলছে। আমরা বর্তমানে সামান্য কিছু আর্থিক চাপে আছি। ভয় পাবেন না। ভয়ের কোন ব্যাপার নয়। আমরা স্বাস্থ্যবান আছি। করোনার আগে যে পর্যায়ে ছিলাম আমরা সেই পর্যায়ে নেই। এ জন্যই আপনারা মাঝে মাঝে ফিল করেন উন্নয়নের গতি কমে গেছে। আমরা অচিরেই এই গতি অর্জন করতে পারবো, হাতের কাজগুলো সম্পূর্ণ করতে পারবো। আরও অনেক কাজ বাকি আছে।’
মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক ড. উর্মি বিনতে সালামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নেছার আহমদ, সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান, পৌরসভার মেয়র মো. ফজলুর রহমান, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেন, ক্যাম্পেইন গ্রুপের সমন্বয়ক মোহম্মদ মকিস মনসুর প্রমূখ।
মৌলভীবাজারে সরকারি মেডিকেল কলেজ ও পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় চাই ওয়াল্ড ওয়াইড ক্যাম্পেইন গ্রুপের আয়োজনে এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।
সেমিনারে বক্তারা মৌলভীবাজারে সরকারি মেডিকেল কলেজ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও মনু নদীর উপর বিকল্প সেতু নির্মাণের দাবি জানান।
এ সময় পরিকল্পনামন্ত্রী দাবিগুলো পূরণের আশ্বাস প্রদান করেন।

ট্যাগস :

এই নিউজটি শেয়ার করুন

x

হাওরে বাঁধ নির্মাণ করলে পানি চলাচলে বাধা সৃষ্টি হবে

প্রকাশের সময় : ০৭:২৩:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ মে ২০২৩

তিমির বনিক,মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, ‘হাওরের জলাভূমিতে, চরে, উপকূলে সাবধানে কাজ করতে হবে। হাওরে বাঁধ নির্মাণ করলে পানি চলাচলে বাধাগ্রস্ত হয়। এতে পানি বাড়ি-ঘরে উঠে যায়।’
আজ বুধবার (২৪ মে) দুপুরে মৌলভীবাজার রেস্ট ইন হোটেলে ‘মৌলভীবাজার জেলার উন্নয়ন ও আমাদের করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘হাওরের পরিবেশ রক্ষার ব্যাপারে প্রশাসন নিয়মিত তদারকি করছে। আমাদেরও সচেতনতার অভাব আছে।’
তিনি বলেন, ‘বৈশ্বিক কারণে সারা দুনিয়ায় টালমাটাল চলছে। আমরা বর্তমানে সামান্য কিছু আর্থিক চাপে আছি। ভয় পাবেন না। ভয়ের কোন ব্যাপার নয়। আমরা স্বাস্থ্যবান আছি। করোনার আগে যে পর্যায়ে ছিলাম আমরা সেই পর্যায়ে নেই। এ জন্যই আপনারা মাঝে মাঝে ফিল করেন উন্নয়নের গতি কমে গেছে। আমরা অচিরেই এই গতি অর্জন করতে পারবো, হাতের কাজগুলো সম্পূর্ণ করতে পারবো। আরও অনেক কাজ বাকি আছে।’
মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক ড. উর্মি বিনতে সালামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নেছার আহমদ, সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান, পৌরসভার মেয়র মো. ফজলুর রহমান, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেন, ক্যাম্পেইন গ্রুপের সমন্বয়ক মোহম্মদ মকিস মনসুর প্রমূখ।
মৌলভীবাজারে সরকারি মেডিকেল কলেজ ও পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় চাই ওয়াল্ড ওয়াইড ক্যাম্পেইন গ্রুপের আয়োজনে এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।
সেমিনারে বক্তারা মৌলভীবাজারে সরকারি মেডিকেল কলেজ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও মনু নদীর উপর বিকল্প সেতু নির্মাণের দাবি জানান।
এ সময় পরিকল্পনামন্ত্রী দাবিগুলো পূরণের আশ্বাস প্রদান করেন।